বৃষ্টিপাতের শ্রেণীবিভাগ

বৃষ্টিপাতের শ্রেণীবিভাগ

620d8d988130c0c51502d5641448d523
বৃষ্টিপাতের শ্রেণীবিভাগ

ভূপৃষ্ঠে তিন প্রকারের বৃষ্টি হয় — 

( ১ ) পরিচলন বৃষ্টিপাত , 

( ২ ) শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত এবং 

( ৩ ) ঘূর্ণবাত বৃষ্টিপাত  ।

পরিচলন বৃষ্টিপাত

নিরক্ষীয় অঞ্চলে জলভাগ বেশি বলে বায়ুতে জলীয় বাষ্পও বেশি থাকে । দিনের বেলা উ‌ষ্ণ ভূপৃষ্ঠের সংস্পর্শে এসে ওই আর্দ্র বায়ু উ‌ষ্ণ হয়ে সােজা ওপরে উঠে যায় এবং ওপরে শীতল বায়ুর সংস্পর্শে ওই আর্দ্র বায়ুও শীতল হয় । এছাড়া , ওপরে বায়ুর চাপ কম বলে ওই আর্দ্র বায়ু দ্রুত প্রসারিত হয়ে শীতল ও ঘনীভূত হয় এবং বৃষ্টিরূপে ওই স্থানেই নেমে আসে । এই ধরনের বৃষ্টিকে বলে পরিচলন বৃষ্টিপাত । উদাহরণ — নিরক্ষীয় অঞ্চলে প্রায় প্রত্যহ সন্ধ্যায় এইভাবে বৃষ্টিপাত হয় । 

শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত

জলীয় বাষ্পপূর্ণ বায়ু ভূপৃষ্ঠের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার সময় পর্বতে বাধা পেলে , পর্বতের গা বেয়ে ওপরে ওঠে এবং প্রসারিত ও শীতল হয় । এর ফলে জলীয় বাষ্প ঘনীভূত হয়ে পর্বতের প্রতিবাত ঢালে প্রচুর বৃষ্টিপাত ঘটায় । একে বলে শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত । পর্বত অতিক্রম করে ওই বায়ু যখন বিপরীত ঢালে বা অনুবাত ঢালে পৌঁছােয় , তখন বায়ুতে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ কমে যায় । এছাড়া , পর্বত অতিক্রম করে ওই বায়ু পর্বতের ঢাল বেয়ে ওপর থেকে নীচে নামে বলে উষ্ণতা বেড়ে যায় এবং এর ফলে নতুন করে জলীয় বাষ্প ধারণ করার ক্ষমতা বেড়ে যায় । এজন্য পর্বতের বিপরীত পার্শ্বে বা অনুবাত ঢালে এবং এর সংলগ্ন এলাকায় বৃষ্টিপাত খুব কম হয় । পর্বতের বিপরীত পাশে অবস্থিত ওই স্বল্প বৃষ্টিপাত যুক্ত এলাকাকে বৃষ্টিচ্ছায় অঞ্চল বলে । উদাহরণ — দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে পশ্চিমঘাট পর্বতমালার পশ্চিম ঢালে প্রচুর পরিমাণে শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত হয় । তবে এই পর্বতমালার পূর্ব ঢাল এবং সন্নিহিত এলাকা সমূহ বৃষ্টিচ্ছায় অঞ্চল ।

ঘূর্ণবাত বৃষ্টিপাত

ভূপৃষ্ঠে সমান্তরাল ভাবে যদি উ‌ষ্ণ ও শীতল বায়ু পরস্পরের দিকে মুখােমুখি এগিয়ে আসে তাহলে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ হয় । এর ফলে যেখানে সংঘর্ষ ঘটে সেই স্থানের বায়ুমণ্ডলে আলােড়ন সৃষ্টি হয় এবং ঘূর্ণবাতের সূচনা ঘটে । শীতল বায়ুস্তর ভারী বলে তখন নীচের দিকে চলে যায় এবং উষ্ণ বায়ুস্তর শীতল বায়ুস্তরের ওপর ঢাল বরাবর ওপরে উঠে যায় । এইভাবে উষ্ণ বায়ুস্তর যতই ওপরে ওঠে , ততই প্রসারিত ও শীতল হয় এবং অবশেষে ঘনীভূত হয়ে বৃষ্টিপাত ঘটায় । একেই বলে ঘূর্ণবাত বৃষ্টিপাত বা ঘূর্ণবাত জনিত বৃষ্টিপাত বা ঘূর্ণি বৃষ্টি । উদাহরণ — নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলে এই ধরনের ঘূর্ণবাত বৃষ্টিপাত হয় ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!