সাধু ও চলিত ভাষার পার্থক্য

সাধু ও চলিত ভাষার পার্থক্য

সাধু ভাষা ও চলিত ভাষার পার্থক্য গুলি হলো —

➡️ সাধু ভাষা : সন্ধি ও সমাসবদ্ধ বড়াে চেহারার সংস্কৃত শব্দের প্রাধান্য , যেমন — পুনরুজ্জীবিত , রবিরশ্মিমালাপ্রদীপ্ত প্রভৃতি ।

চলিত ভাষা : ভাষায় অতৎসম শব্দের বাহুল্য , যেমন — জীবন ফিরে পাওয়া ( < পুনরুজ্জীবিত ) রােদে উজ্জ্বল হওয়া ( < রবিরশ্মিমালাপ্রদীপ্ত ) ইত্যাদি ।

➡️ সাধু ভাষা : অসমাপিকা ও সমাপিকা ক্রিয়ার পূর্ণ রূপ , যেমন — পড়িয়া , পড়িয়াছিল প্রভৃতি ।

চলিত ভাষা : অসমাপিকা ও সমাপিকা ক্রিয়ার সংক্ষিপ্ত চেহারা , যেমন — পড়ে , পড়েছিল ইত্যাদি ।

➡️ সাধু ভাষা : সর্বনামের পূর্ণ রূপ , যেমন — ইহার , উহার ইত্যাদি ।

চলিত ভাষা : সর্বনামের ছােটো রূপ , যেমন — এর , ওর ইত্যাদি ।

➡️ সাধু ভাষা : অনুসর্গের পূর্ণ রূপ ; যেমন — মধ্যে , হইতে প্রভৃতি ; পদবিন্যাস ও বাক্য গঠনে নিয়মবদ্ধ পদ্ধতি মেনে চলা যথা – কর্তা , কর্ম , ক্রিয়া প্রভৃতির নিয়ম অনুসারে ব্যবহার , ভাষা গুরুগম্ভীর , মার্জিত অথচ কৃত্রিম । 

চলিত ভাষা : অনুসর্গের সংক্ষিপ্ত রূপ ; মাঝে , থেকে ইত্যাদি , পদবিন্যাস ও বাক্যগঠন বিশেষ রীতির , ভাষা সাবলীল ও লঘু  এবং জীবন্ত ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!