আরব জাতীয়তাবাদ

আরব জাতীয়তাবাদ

জাতীয়তাবাদ

এশিয়া , আফ্রিকা ও ইউরােপ এই তিন মহাদেশের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত মধ্যপ্রাচ্যে টার্কি ( তুরস্ক ) এবং ইরান ( পারস্য ) বাদে যেসব অঞ্চলে আরবি ভাষাভাষী মানুষ বসবাস করে সেই অংশই আগে আরব দেশ নামে পরিচিত ছিল । উনিশ শতক থেকেই আরবরা নিজেদের স্বাধীন করার লক্ষ্যে জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে ওঠে । 

আরব জাতীয়তাবাদের উত্থান এর পটভূমি / কারণ

আরব জাতীয়তাবাদ উন্মেষের উল্লেখযােগ্য কারণগুলি হল—

ধর্মীয় সংস্কার আন্দোলন :

কয়েকজন আরব নেতা সমস্ত রকম কলুষতা থেকে ইসলামকে মুক্ত করে তাকে আবার স্বমহিমায় প্রতিষ্ঠিত করার উদ্দেশ্যে একটি সংস্কার আন্দোলন শুরু করেন । যা আরব জাতীয়তাবাদের উন্মেষ ঘটাতে সাহায্য করেছিল । 

অতীত ঐতিহ্যের চর্চা :

আল বেরুনী , শেখ শাদি , ওমর খৈয়াম , আল-মামুদি , ইবন সিনা প্রমুখ বিদগ্ধ ব্যক্তি আরববাসীকে অতীত ঐতিহ্য ও গৌরব মনে করিয়ে দেন । সিরিয়াতে আরবি ভাষা ও সাহিত্যচর্চা আরবদের মধ্যে জাতীয়তাবাদের উন্মেষ ঘটায় । 

পাশ্চাত্য শিক্ষার সংস্পর্শ :

পাশ্চাত্যের জাতীয়তাবাদী চিন্তাধারার সংস্পর্শে এসে আরবদের মনেও জাতীয়তাবাদী চেতনার সঞ্চার হয় । অঙ্কুরিত হয় আরব জাতীয়তাবাদ । এ ব্যাপারে ১৮৬৩ খ্রিস্টাব্দে বেইরুটে প্রতিষ্ঠিত ‘ প্রোটেস্ট্যান্ট কলেজ ’ – এর ভূমিকা বিশেষভাবে স্মরণীয় । 

ব্রিটিশ নীতি :

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটিশ বিদেশ সচিব আর্থার ব্যালফুর এক ঘােষণাপত্র জারি করে বলেন — ব্রিটিশ সরকার প্যালেস্টাইনে ইহুদিদের জন্য জাতীয় বাসভূমি গড়ে তােলার পক্ষে । এজন্য ব্রিটেন তার সাধ্যমতাে চেষ্টা চালাবে । ব্রিটিশের এই ঘােষণাপত্র আরবদের ঐতিহ্যে আঘাত দেয় ।

তরুণ তুর্কি আন্দোলনের প্রভাব : 

সুলতান দ্বিতীয় হামিদের স্বৈরাচারী শাসনের বিরুদ্ধে তুরস্কের জাতীয়তাবাদী তরুণদের নিয়ে গঠিত তরুণ তুর্কি আন্দোলন আরব জাতীয়তাবাদীদের আশা আকাঙ্ক্ষাকে যে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিল তাতে কোনাে সন্দেহ নেই । 

ভার্সাই সন্ধির দায়িত্ব :

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের অবসানে ভার্সাই সন্ধিতে ( ১৯১৯ খ্রি. ) মিত্রশক্তি আরব জাতীয়তাবাদকে সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছিল । ঔপনিবেশিক স্বার্থ চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে জাতিসংঘ বা লিগের নির্দেশে ইরাক ও প্যালেস্টাইন যায় ইংরেজের এবং সিরিয়া ও লেবানন যায় ফ্রান্সের রক্ষণাধীনে । 

প্যালেস্টাইন সমস্যা :

প্যালেস্টাইন সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল আরব জাতীয়তাবাদী ও জিওনবাদী আন্দোলনের ঘাত প্রতিঘাতে । আরব জাতীয়তাবাদীরা চেয়েছিল প্যালেস্টাইনের আরবদের ( ফিলিস্তিনীয় ) জন্য স্বাধীন রাষ্ট্র গড়ে তুলতে । অপরদিকে জিওনবাদীদের লক্ষ্য ছিল প্যালেস্টাইনে ইহুদিদের জন্য স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা । ফলে একই ভৌগােলিক অঞ্চলে দুটি বিপরীতধর্মী স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চাওয়া হলে প্যালেস্টিনীয় সমস্যার সৃষ্টি হয় । 

উপসংহার 

আরব জাতীয়তাবাদের উৎস মূলে রয়েছে আরবে দীর্ঘ কয়েক হাজার বছরের তুর্কি শাসন । প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর তুরস্কের খলিফার নেতৃত্বাধীন সুবিশাল অটোমান সাম্রাজ্য ভেঙে পড়ে । এর পাশাপাশি পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলিতে জাতিসংঘের বিশেষ ব্যবস্থায় ব্রিটেনের আধিপত্য কায়েম হলে আরব জাতীয়তাবাদের উত্থান অবশ্যম্ভাবী হয়ে ওঠে । অবশেষে প্যালেস্টাইন সমস্যাকে কেন্দ্র করে আরব জাতীয়তাবাদের সম্পূর্ণ স্ফুরণ ঘটে ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!