জিব্বেরেলিন এর উৎস বৈশিষ্ট্য ও কাজ

জিব্বেরেলিন এর উৎস বৈশিষ্ট্য ও কাজ 

উদ্ভিদের বীজপত্র , অঙ্কুরিত চারা , অপরিণত পাতা , শীর্ষমুকুল ইত্যাদি অঙ্গের কোশগুলি থেকে সংশ্লেষিত টারপিনয়েড গােত্রভুক্ত নাইট্রোজেন বিহীন যে জৈব অম্ল উদ্ভিদের প্রধানত কাণ্ডের দৈর্ঘ্য বৃদ্ধি এবং বীজের অঙ্কুরােদগমে বিশেষভাবে সাহায্য করে , তাকে জিব্বেরেলিন বলে । 

জিব্বেরেলিন এর রাসায়নিক গঠন 

বর্তমানে প্রায় 50 টির মতাে জিব্বেরেলিন জাতীয় জৈব অম্লের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে । GA সাংকেতিক চিহ্নের নীচে প্রদত্ত সংখ্যার দ্বারা বিভিন্ন প্রকার জিব্বেরেলিনকে চিহ্নিত করা । হয় ( GA1 , GA2 , GA3 – – – – GA50 ) । জিব্বারেলিক অ্যাসিড GA3 , – এর রাসায়নিক নাম এবং এর রাসায়নিক সংকেত C19H22O6 । 

জিব্বেরেলিন এর বৈশিষ্ট্য

( i ) জিব্বেরেলিন সবদিকে প্রবাহিত হয় । 

( ii ) জিব্বেরেলিন -এর সঞ্চয় মাত্রা বীজপত্রে সর্বাধিক । 

( iii ) জিব্বেরেলিন জলে দ্রবণীয় এবং ব্যাপন প্রক্রিয়ায় পরিবাহিত হয় । 

( iv ) এই হরমােনগুলি নাইট্রোজেন বিহীন আম্লিক প্রকৃতির । 

( v ) উভয় সংবহন কলা জাইলেম এবং ফ্লোয়েম এর মধ্য দিয়ে পরিবাহিত হয়।

জিব্বেরেলিন এর উৎস

জিব্বেরেলিন পরিণত বীজের বীজপত্রে বেশি মাত্রায় সংশ্লেষিত হয় । এছাড়াও শীর্ষমুকুল , অঙ্কুরিত চারা , অপরিণত পাতা , মূলের অগ্রভাগে জিব্বেরেলিন সংশ্লেষিত হয় । 

জিব্বেরেলিন এর কাজ

পর্বমধ্য বৃদ্ধি :

জিব্বেরেলিন পর্বমধ্যের কোশগুলির আয়তন এবং কোশ বিভাজনের হার বৃদ্ধি করে পর্বমধ্যের দৈর্ঘ্যের বৃদ্ধি ঘটায় , ফলে উদ্ভিদের সামগ্রিক দৈর্ঘ্যের বৃদ্ধি ঘটে এবং বংশগত খর্বতা দূরীভূত হয় । 

বীজের সুপ্ত দশা অবসান :

জিব্বেরেলিন বীজের সুপ্ত দশা ভঙ্গ করে অঙ্কুরোদগমে সাহায্য করে । 

পুষ্পের প্রস্ফুরণ :

জিব্বেরেলিন এর প্রভাবে আলাে এবং উত্তাপের নিয়ন্ত্রণ বাদ দিয়েই পুষ্পের পরিস্ফুরণ ঘটে । 

পাতা , ফুল ও ফলের আয়তন বৃদ্ধি : 

জিব্বেরেলিন এর প্রভাবে পাতা , ফুল এবং ফলের আয়তন বৃদ্ধি পায় । 

মুকুলের সুপ্ত দশা ভঙ্গ এবং বৃদ্ধি :

জিব্বেরেলিন এর প্রভাবে মুকুলের সুপ্ত দশা ভঙ্গ হয় এবং কাক্ষিক মুকুলের বৃদ্ধি ঘটে । 

বীজহীন ফল উৎপাদন :

জিব্বেরেলিন এর প্রভাবে নিষেক ব্যতিরেকেই গর্ভাশয় ফলে পরিণত হয় । 

লিঙ্গ নির্ধারণ : 

জিব্বেরেলিন উদ্ভিদের লিঙ্গ নির্ধারণে কার্যকরী ভূমিকা গ্রহণ করে ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!