দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ইঙ্গ ফরাসি তোষণ নীতি কতটা দায়ী ছিল

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ইঙ্গ ফরাসি তোষণ নীতি কতটা দায়ী ছিল

চেকোস্লোভাকিয়া দখল

মিউনিখ চুক্তি স্বাক্ষর করার সময় হিটলার চেকোশ্লোভাকিয়ার অবশিষ্ট অংশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন । কিন্তু মাত্র ৬ মাসের মধ্যেই তিনি সমগ্ৰ চেকোস্লোভাকিয়া দখল করে তােষণ নীতির অসারতা প্রমাণ করে দেন । 

পোল্যান্ড আক্রমণ 

তােষণ নীতির মাধ্যমে হিটলারকে খুশি রেখে ইঙ্গ ফরাসি পক্ষ মনে করেছিল ইউরােপে শান্তি বজায় রাখতে পারবে । কিন্তু এই তােষণ হিটলারের অহমিকা ও রাজ্য স্পৃহা এমনই বাড়িয়ে দিয়েছিল যে , দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ অনিবার্য হয়ে উঠেছিল । পােল্যান্ড করিডাের এর দাবি জানিয়ে প্রত্যাখ্যাত হিটলার যখন পােল্যান্ড আক্রমণ করলেন , তখন দেরিতে হলেও , তােষণ নীতি বর্জন করে ইংল্যান্ড ও ফ্রান্স পােল্যান্ডের পাশে গিয়ে দাঁড়ায় । শুরু হয়ে যায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ । 

রুশ জার্মান অনাক্রমণ চুক্তি

হিটলারের সাম্যবাদী বিদ্বেষ ও সােভিয়েত রাশিয়া আক্রমণের পরিকল্পনা সম্পর্কে অবহিত ছিলেন স্টালিন । তিনি চেয়েছিলেন জার্মান আগ্রাসনকে কিছু দিনের জন্য পিছিয়ে দিতে , আর সেই ফাঁকে রাশিয়ার শক্তি বৃদ্ধি করে নিতে । এদিকে তােষণ নীতিতে আচ্ছন্ন ব্রিটেন ও ফ্রান্স রাশিয়ার সঙ্গে কোনাে চুক্তিতেই আবদ্ধ হতে চায়নি । এক্ষেত্রে তাদের ভয় ছিল রাশিয়ার সঙ্গে সামরিক চুক্তিতে আবদ্ধ হলে জার্মানি ক্ষুধ হয়ে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নামবে । এই পরিস্থিতিতে সােভিয়েত রাশিয়া জার্মানির সঙ্গে রুশ জার্মান অনাক্রমণ চুক্তি স্বাক্ষর করে ( ১৯৩৯ খ্রি. ২৩ আগস্ট ) । হিটলার এই চুক্তি অমান্য করে রাশিয়া আক্রমণ করেছিলেন । 

যৌথ নিরাপত্তা ব্যবস্থার সমাধি 

তােষণ নীতির সুযােগ নিয়ে মুসোলিনির আবিসিনিয়া ( ইথিওপিয়া ) আক্রমণের সময় ( ১৯৩৫ খ্রি. ) পশ্চিমি রাষ্ট্রগুলি নীরব ছিল । হিটলার এতে আরও উৎসাহিত হয়ে রাইন অঞ্চলে সেনা সমাবেশ করলেন ( ১৯৩৬ খ্রি. ) । এতেও জাতিসংঘ নীরব রইল । এর ফলে জাতিসংঘের যৌথ নিরাপত্তা ব্যবস্থার সমাধি রচিত হয় । 

উপসংহার 

সাহসের সঙ্গে তােষণ নীতিকে ঝেড়ে ফেলে ইঙ্গ ফরাসি নেতৃবৃন্দের উচিত ছিল স্পেনের গৃহযুদ্ধের সময় ( ১৯৩৬ খ্রি. ) হিটলার ও মুসােলিনির মুখােমুখি দাঁড়ানাে । তা যদি তারা পারতেন তবে মুসােলিনি বা হিটলার এতখানি সাম্রাজ্যবাদী হয়ে উঠতে পারতেন না । কাজেই তােষণ নীতি নিশ্চিতভাবেই ছিল ভ্রান্ত ও অদূরদর্শী । ঐতিহাসিক ডেভিড টমসনের  মতে , “ যে যুক্তিগুলির ওপর তােষণ নীতি দাঁড়িয়েছিল সেগুলি চূড়ান্ত ভ্রান্ত হিসেবে প্রমাণিত ” [ This policy ( appearement ) rested upon a theory that proved to be utterly erroneous ]।

Leave a Comment

error: Content is protected !!