আয়ন কাকে বলে কয় প্রকার ও কি কি

Contents

আয়ন কাকে বলে কয় প্রকার ও কি কি

index 31
আয়ন কাকে বলে কয় প্রকার ও কি কি

তড়িৎ গ্রস্ত পরমাণুকে আয়ন বলে ।

আয়নের প্রকারভেদ 

আয়ন দুই প্রকার । যথা — ( i ) ধনাত্মক আয়ন বা ক্যাটায়ন এবং  ( ii ) ঋণাত্মক আয়ন বা অ্যানায়ন । 

ধনাত্মক আয়ন বা ক্যাটায়ন :

ধনাত্মক তড়িৎ গ্রস্ত পরমাণুকে ক্যাটায়ন বলে । পরমাণু সবচেয়ে বাইরের কক্ষ থেকে এক বা একাধিক ইলেকট্রন বর্জন করলে পরমাণুটি ক্যাটায়নে পরিণত হয় । কারণ তখন পরমাণুর মােট ইলেকট্রন সংখ্যা নিউক্লিয়াসের মােট প্রােটন সংখ্যার থেকে কম হয় । 

উদাহরণ : সােডিয়াম পরমাণু একটি ইলেকট্রন বর্জন করলে Na ক্যাটায়ন উৎপন্ন হয় ; Na – e ⟶ Na

ঋণাত্মক আয়ন বা অ্যানায়ন :

ঋণাত্মক তড়িৎ গ্রস্ত পরমাণুকে অ্যানায়ন বলে । পরমাণু সর্ববহিস্থ কক্ষে এক বা একাধিক ইলেকট্রন গ্রহণ করলে পরমাণুটি অ্যানায়নে পরিণত হয় । কারণ তখন পরমাণুর মােট ইলেকট্রন সংখ্যা নিউক্লিয়াসের মােট প্রােটন সংখ্যার থেকে বেশি হয় । 

উদাহরণ : ক্লোরিন পরমাণু একটি ইলেকট্রন গ্রহণ করে CI অ্যানায়নে পরিণত হয় ; Cl + e ⟶ CI

পরমাণু থেকে কিভাবে আয়ন সৃষ্টি হয়

পরমাণু তড়িৎ নিরপেক্ষ । প্রশম অবস্থায় পরমাণুর নিউক্লিয়াসে যতগুলি প্রােটন থাকে বাইরের বিভিন্ন কক্ষপথে ঠিক ততগুলি ইলেকট্রন থাকে । কোনাে পরমাণু সবচেয়ে বাইরের কক্ষ থেকে এক বা একাধিক ইলেকট্রন বর্জন করলে অথবা বাইরের কক্ষে এক বা একাধিক ইলেকট্রন গ্রহণ করলে , ওই পরমাণুটি তড়িৎ গ্রস্ত কণায় পরিণত হয় এবং আয়ন সৃষ্টি করে । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!