ওয়াশিংটন সম্মেলন এর পটভূমি / উদ্দেশ্য / সীমাবদ্ধতা

ওয়াশিংটন সম্মেলন এর পটভূমি / উদ্দেশ্য / সীমাবদ্ধতা

১৯২১ খ্রিস্টাব্দের নভেম্বর থেকে ১৯২২ খ্রিস্টাব্দের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত আমেরিকার ওয়াশিংটন শহরে অনুষ্ঠিত সম্মেলনই ওয়াশিংটন সম্মেলন নামে পরিচিত । আসলে মানবতাকে ধ্বংস করা হবে , না যুদ্ধকে ধ্বংস করা হবে , এই প্রশ্ন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে বড়াে হয়ে উঠেছিল । এ প্রসঙ্গে আমেরিকার রাষ্ট্রপতি কেনেডি  বলেছিলেন — মানবজাতির অবশ্যই যুদ্ধকে শেষ করা দরকার , না হলে যুদ্ধই মানব জাতিকে শেষ করে দেবে ( ‘ Mankind must put an end to war or war will put an end to mankind ‘ )।

ওয়াশিংটন সম্মেলনের পটভূমি 

সুদূর প্রাচ্যে উত্তেজনাবৃদ্ধি এই সম্মেলনের পটভূমি রচনা করেছিল । 

1. প্রথম বিশ্বযুদ্ধে জাপান ও চিন এই দুই দেশ মিত্রশক্তি জোটে যােগ দেয় ।

2. ভার্সাই চুক্তি অনুযায়ী চিনের সান্টুং অঞ্চলের দখল নেয় জাপান । 

3. জাপানের অন্যায় আগ্রাসনে চিনারা বিদেশি দ্রব্য বয়কট শুরু করলে জাপান চিনের সঙ্গে মিত্রতা চায় । 

4. আমেরিকা জাপানের ক্রমবর্ধমান শিল্পোন্নতি ও নৌশক্তি বৃদ্ধিতে ভীত হয়ে পড়ে । 

বিশ্ব রাজনীতির এই পটভূমিকায় আমেরিকা নিজ উদ্যোগে ওয়াশিংটন সম্মেলন আহ্বান করে । 

ওয়াশিংটন সম্মেলনের উদ্দেশ্য 

ওয়াশিংটন সম্মেলনের প্রকৃত উদ্দেশ্য ছিল— 

1. জাপানের উত্তরােত্তর ক্ষমতা বৃদ্ধিতে বাধাদান করা ।  

2. এশিয়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বৃহৎ রাষ্ট্রবর্গগুলির প্রভাব অক্ষুন্ন রাখা । 

3. পূর্ব এশিয়ার সমস্ত সমস্যার সমাধান করা । 

4. চিনের অখণ্ড সার্বভৌমত্ব সুনিশ্চিত করা ।

ওয়াশিংটন সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী দেশ সমূহ

ওয়াশিংটন সম্মেলনে যােগ দেয় ৯ টি দেশ — আমেরিকা , ইংল্যান্ড , ফ্রান্স , ইতালি , জাপান , চিন , পাের্তুগাল , বেলজিয়াম , নেদারল্যান্ড । এই সম্মেলনে যে তিন কূটনীতিবিদ মুখ্য ভূমিকা পালন করেন তারা হলেন , আমেরিকার চালর্স হিউজ , ইংল্যান্ডের আর্থার ব্যালফোর এবং জাপানের তােমােসাবুয়াে কাতা । 

ওয়াশিংটন সম্মেলনের স্বাক্ষরিত চুক্তিসমূহ

এই সম্মেলনে তিনটি আলাদা চুক্তি সম্পাদিত হয় , যথা — প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল বিষয়ক চতুঃশক্তি চুক্তি ( ব্রিটেন , আমেরিকা , ফ্রান্স ও জাপানকে নিয়ে ) ; পঞ্চশক্তির নৌচুক্তি ( ব্রিটেন , আমেরিকা , জাপান , ফ্রান্স , ইতালি ) ; চিন সম্পর্কিত নয় শক্তি চুক্তি ( চুক্তিবদ্ধ সব দেশ ) । 

ওয়াশিংটন সম্মেলনের সীমাবদ্ধতা

ওয়াশিংটন সম্মেলনের স্বাক্ষরিত চুক্তিগুলি দীর্ঘমেয়াদের বিচারে সফল নয় — 

1. যুদ্ধ জাহাজের ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের সীমারেখা টানা হলেও বিধ্বংসী অস্ত্রের ক্ষেত্রে তা হয়নি । 

2. জাপানের ওপরেই এই চুক্তির স্থায়িত্ব নির্ভরশীল থাকলেও জাপানের জঙ্গিবাদ এই চুক্তির স্থায়িত্ব বিনষ্ট করে । 

3. সম্মেলনে বিভিন্ন চুক্তিবদ্ধ দেশগুলির উদ্দেশ্য আলাদা হওয়ায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়নি । 

উপসংহার 

ওয়াশিংটন সম্মেলন সফলতা বা গুরুত্বের বিচারে দূর প্রাচ্যে পরবর্তী দশ বছর পর্যন্ত শান্তি বজায় রাখতে পেরেছিল । এই নিরস্ত্রীকরণ প্রচেষ্টা কিছুটা সাফল্যও পেয়েছিল । এই সাফল্যকে গ্যাথর্ন হার্ডি ‘অনেকখানি’ ( substantial ) বললেও ঐতিহাসিক ল্যাংসামের মতে — ওয়াশিংটন সম্মেলনের কাজের মূল্যায়ন করা কঠিন ( ‘ It was difficult to evaluate the work of the Washington Conference ‘ )।

Leave a Comment

error: Content is protected !!