নাদির শাহের ভারত আক্রমণ

নাদির শাহের ভারত আক্রমণ

অভ্যন্তরীণ সংকটে জীর্ণ মােগল সাম্রাজ্য আরও দুর্বল হয় নাদির শাহের আক্রমণে । নাদির শাহের আক্রমণ , ব্যাপক হত্যাকাণ্ড ও লুঠতরাজের ফলে মােগল সাম্রাজ্যের পতন ত্বরান্বিত হয় ।

পটভূমি

দিল্লির মােগল শাসনের দুর্বলতার সুযােগে নাদির ভারত আক্রমণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন । ভারত আক্রমণের সপক্ষে নাদিরের আর – একটি ভালাে অজুহাতও ছিল । কান্দাহারের জনৈক পলাতক আফগান কাবুলে আশ্রয় নেন । নাদির এর বিরােধিতা করে দিল্লির রাজ দরবারে প্রতিনিধি পাঠান । কিন্তু মহম্মদ শাহ তার এই প্রতিনিধিকে উপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন পর্যন্ত করেননি ।

নাদির শাহের দিল্লি দখল

নাদির শাহ্ প্রায় বিনা বাধায় লাহাের ও পেশােয়ার দখল করেন । অপদার্থ , অলস সম্রাট মহম্মদ শাহ্ এবারে দিল্লি রক্ষার জন্য সচেষ্ট হন । পানিপথের ২০ মাইল উত্তরে কর্ণাল নামক স্থানে উভয় পক্ষ মুখােমুখি হয় ( ১৭৩৯ খ্রি. ) । কর্ণালের যুদ্ধে মহম্মদ শাহ্ পরাজিত হন । ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদানের শর্তে তিনি নাদিরের সঙ্গে সন্ধি স্বাক্ষর করেন । অতঃপর মােগল সম্রাটের আমন্ত্রণে নাদির সসৈন্যে দিল্লিতে আসেন ।

হত্যাকাণ্ড ও লুণ্ঠন

কয়েকজন সৈন্যের মৃত্যুর জন্য নাদির দিল্লিবাসীকে নির্বিচারে হত্যার আদেশ দেন । ফলে কয়েক হাজার নরনারী নিহত হয় । অবশেষে মহম্মদ শাহের কাতর অনুনয়ে নাদির দিল্লি ত্যাগ করার সময় কয়েক কোটি টাকা , বহু মণি মুক্তো , অসংখ্য দাসদাসী , হাতি , ঘােড়া , উট এবং প্রখ্যাত ময়ূর সিংহাসন ও কোহিনুর মণি পারস্যে নিয়ে যান ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!