1878 সালের অস্ত্র আইন বলতে কী বোঝো

1878 সালের অস্ত্র আইন বলতে কী বোঝো

কট্টর সাম্রাজ্যবাদী শাসক বড়োলাট লর্ড লিটন ভারতে জাতীয়তাবাদী জাগরণকে ধ্বংস করার জন্য জারি করেন কুখ্যাত অস্ত্র আইন ( ১৮৭৮ খ্রি. ) । সরকারের অনুমতি ছাড়া ভারতীয়দের আগ্নেয়াস্ত্র রাখা নিষিদ্ধ হয় । লর্ড লিটন প্রবর্তিত ভারতীয়দের স্বার্থ বিরােধী আইনগুলি ব্যাপক জাতীয়তাবাদী ভাবধারার বিকাশ ঘটিয়েছিল । এ প্রসঙ্গে সুরেন্দ্রনাথ বেঙ্গলি পত্রিকায় লেখেন — লর্ড লিটন তাঁর বিভিন্ন কার্যকলাপের দ্বারা ভারতে জনমত গঠনে সহায়তা করেছেন এবং তাঁর এই অবদানের জন্য আমাদের দেশ তাঁর কাছে চিরকৃতজ্ঞ থাকবে ।

300px Vickers gun cartidge belt loading
অস্ত্র আইন

১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের উদ্দেশ্য

১৮৫৭ সালের মহাবিদ্রোহের পরেই ব্রিটিশ ভারতবাসীকে নিরস্ত্র করার পরিকল্পনা নেয় । ব্রিটিশের এই পরিকল্পনারই বাস্তবরূপ হল এই আইন । এই আইনের মাধ্যমে ব্রিটিশ ভারতবাসীকে নিরস্ত্র করে নির্বিঘ্নে আরও  বেশিমাত্রায় শােষণ করতে চেয়েছিল । আইনটির উদ্দেশ্য ছিল —

  • ভবিষ্যতে ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দের মতাে কোনাে সশস্ত্র বিদ্রোহ যেন আর দেখা না দেয় ।
  • এর দ্বারা ভারতীয় ও ইংরেজের মধ্যে আইনগত সুবিধাভােগের ফারাক যেন সুস্পষ্ট হয় ।

১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ

এই আইনের বিরুদ্ধে শিক্ষিত ভারতবাসী রুখে দাঁড়ায় । সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় এই আইনের বিরুদ্ধে  জনমত গড়ে তুলতে শুরু করেন । সুরেন্দ্রনাথের নেতৃত্বে ভারতসভা অস্ত্র আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ডাক দেয় । কৃষ্ণমােহন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভাপতিত্বে কলকাতার টাউন হলে এক প্রতিবাদ সভার আয়ােজন করা হয় ( ১৮৭৮ খ্রি. ১৬ এপ্রিল ) ।

মন্তব্য

লর্ড লিটন প্রবর্তিত অস্ত্র আইন ভারতবাসীর রাজনৈতিক চেতনার স্ফুরণ ঘটিয়েছিল । এই আইন ব্রিটিশ ও ভারতীয়দের মধ্যে কতটা ফারাক তা স্পষ্টরূপে ভারতবাসীকে উপলদ্ধি করায় । আসলে সাম্রাজ্যবাদী স্বার্থরক্ষা এবং ভারতে ব্রিটিশদের জীবন নিরাপদ ও সুরক্ষিত করার লক্ষ্যেই লিটন এই আইন প্রয়ােগ করেন । রাষ্ট্রগুরু সুরেন্দ্রনাথ এই কারণে মন্তব্য করেছিলেন — অস্ত্র আইন আমাদের ওপর জাতিগত অধীনতার ছাপ মেরে দিয়েছে ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!