ভৌত রাশি বা প্রাকৃতিক রাশি কাকে বলে

Contents

ভৌত রাশি বা প্রাকৃতিক রাশি কাকে বলে

প্রাকৃতিক বিষয়কে ভৌত রাশি বা প্রাকৃতিক রাশি বলা হয় । 

উদাহরণ : দৈর্ঘ্য , ভর , সময় , সময় , উষ্ণতা , গতিবেগ প্রভৃতির পরিমাপ করা যায়। তাই এদের প্রত্যেকে এক-একটি ভৌত রাশি।

Physical Quantity and Measurement
প্রাকৃতিক রাশি

ভৌত বস্তু – ভৌত রাশি নয়

জল, কাঠ, বায়ু –  এদের ভৌত রাশি বলা যায় না। কারণ জল, কাঠ, বায়ু – এদের আমরা পরিমাপ করি না –  এদের ভর, ওজন, ঘনত্ব বা আয়তন পরিমেয়। তাই জল, কাঠ, বায়ু ভৌত বস্তু, কিন্তু ভৌত রাশি নয়।

ভৌত রাশির প্রকারভেদ

ভৌত রাশি দুই প্রকার ー

  1. স্কেলার রাশি এবং 
  2. ভেক্টর রাশি।

স্কেলার রাশি :

যেসব রাশির কেবল মান আছে, কিন্তু কোন অভিমুখ নেই, অর্থাৎ যেসব ভৌত রাশিকে প্রকাশ করার জন্য কেবল মানই যথেষ্ট তাদের স্কেলার রাশি বলা হয়।

উদাহরণ : দৈর্ঘ্য , ভর , সময় , আয়তন , উষ্ণতা প্রভৃতি স্কেলার রাশি। এদের প্রতিটি রাশিকে প্রকাশ করার জন্য কেবল মানই যথেষ্ট, কোন অভিমুখের প্রয়োজন হয় না।

ভেক্টর রাশি :

যেসব রাশির মান এবং অভিমুখ দুই-ই আছে, অর্থাৎ যেসব ভৌতরাশিকে প্রকাশ করার জন্য মান ও অভিমুখ আবশ্যিক তাদের ভেক্টর রাশি বলা হয়।

উদাহরণ : বেগ , ত্বরন , সরণ , ওজন , ভরবেগ প্রভৃতি ভেক্টর রাশি। কারণ এদের প্রতিটি রাশিকে প্রকাশ করার জন্য মান ও অভিমুখ উভয়ই আবশ্যিক।

স্কেলার রাশি ও ভেক্টর রাশির পার্থক্য :

  1. স্কেলার রাশির মান আছে, কিন্তু অভিমুখ নেই। যেমন – কার্য একটি স্কেলার রাশি। ভেক্টর রাশির মান ও অভিমুখ দুই-ই আছে। যেমন – গতিবেগ একটি ভেক্টর রাশি।
  2. একজাতীয় স্কেলার রাশির যোগ ও বিয়োগ বীজগণিতের সাধারণ নিয়ম অনুসারে হয়। ভেক্টর রাশির অভিমুখ থাকায় একজাতীয় ভেক্টর রাশির যোগ বা বিয়োগ বীজগণিতের সাধারণ নিয়ম অনুসারে হয় না।

স্কেলার রাশি ও ভেক্টর রাশি নির্ধারণ

স্কেলার রাশি : ভর , আয়তন , চাপ , উষ্ণতা , সময় , দ্রুতি , কম্পাঙ্ক , কার্য , ঘনত্ব

ভেক্টর রাশি : ওজন , বল , ত্বরণ , ভরবেগ , সরণ , বেগ , ক্ষেত্রফল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!