ইতিহাস

রাশিয়ার শিল্প বিপ্লব আলোচনা করো

Contents

রাশিয়ার শিল্প বিপ্লব আলোচনা করো

জার পিটার দি গ্রেট – এর আমলে ( ১৭০০-১৭২৫ খ্রি. ) রাশিয়ায় শিল্প বিপ্লবের বীজ রােপিত হয় । কিন্তু তাঁর পরবর্তী একাধিক জার শিল্পায়নের প্রতি আগ্রহী ছিলেন না । এরপর জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডার ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দে ভূমিদাস প্রথার উচ্ছেদ ঘটিয়ে রাশিয়ায় শিল্পায়নের প্রথম ধাপটি নির্মাণ করেন ।

unnamed
রাশিয়ায় শিল্পবিপ্লব

দ্বিতীয় আলেকজান্ডারের ভূমিকা

জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডার রাশিয়ায় শিল্পোন্নয়নের ক্ষেত্রে নবযুগের সূচনা করেন ।

  1. ১৮৬১ সালে তিনি ভূমিদাস প্রথার অবলুপ্তি ঘটান । মুক্তিপ্রাপ্ত ভূমিদাসরা অনেকেই শহরে এসে স্বাধীন শিল্প শ্রমিক হিসেবে যােগদান করলে সেখানে শিল্পবিপ্লবের অনুকূল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় ।
  2. তাঁর সময় রেলপথ সম্প্রসারণ যােগাযােগ ব্যবস্থা ও শিল্পোন্নয়নকে ত্বরান্বিত করেছিল ।
  3. এই সময় প্রধানত ভারী শিল্প , কয়লা , পেট্রোল নিষ্কাশন , লৌহ উত্তোলন ও আধুনিক প্রযুক্তির বিস্তার ঘটে ।

কাউন্ট উইটি – এর ভূমিকা

শিল্পায়নের ক্ষেত্রে রাশিয়ার শেষ জার দ্বিতীয় নিকোলাসের অর্থমন্ত্রী কাউন্ট সের্গেই । উইটি ( ১৮৯২-১৯০৩ খ্রি. ) এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন । শিল্পের প্রয়ােজনীয় মূলধন সংগ্রহের জন্য তিনি 一

  1. ফ্রান্স , জার্মানি প্রভৃতি দেশ থেকে ঋণ হিসেবে মূলধন জোগাড় করতে শুরু করেন । মূলত এই বিদেশি পুঁজি সম্বল করেই রাশিয়ায় আধুনিক কলকারখানার পত্তন হয় ।
  2. তিনি আমদানি কমিয়ে রপ্তানি বাড়িয়ে পুঁজি সংগ্রহ করেন ।
  3. ব্যাংক ব্যবস্থার সম্প্রসারণ ঘটান ।
  4. ব্যক্তিগত মালিকানাভিত্তিক শিল্পোদ্যোগকে উৎসাহিত করেন ।
  5. শুল্ক ব্যবস্থার সংস্কার সাধন করেন এবং বিদেশি পুঁজিপতিদের আকৃষ্ট করার জন্য স্বর্ণমান চালু করেন ।

রাশিয়ায় শিল্প বিপ্লবের ফলাফল

রুশ – বিপ্লবের ( ১৯১৭ খ্রি. ) আগেই আধুনিক শিল্পে রাশিয়ার অগ্রগতি এক সুস্পষ্ট রূপ পেয়েছিল , আর বিপ্লব পরবর্তী সমাজতন্ত্রী সরকার পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা শুরু করলে রাশিয়ার শিল্পায়নে জোয়ার আসে । ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দের পর থেকে ভারী শিল্প মূলত কয়লাখনি , পেট্রোল নিষ্কাশন , লৌহ উত্তোলন ও লৌহ – ইস্পাত শিল্পে বিশেষ গুরুত্ব আরােপ করা হয় । ১৯০০ খ্রি. নাগাদ রাশিয়ায় মােট ২৫ হাজারেরও বেশি শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠে এবং সেগুলিতে প্রায় ৯০০ মিলিয়ন রুবল বিদেশি পুঁজির বিনিয়ােগ ঘটে । রাশিয়ায় শিল্পায়নের সুফল হিসেবে লােহা – ইস্পাত শিল্পের পাশাপাশি রাসায়নিক শিল্প , তৈল ও বিদ্যুৎ শিল্প , বস্ত্রশিল্প প্রভৃতি গড়ে ওঠে ।

উপসংহার

ইংল্যান্ডের তুলনায় এ সমস্ত দেশগুলিতে শিল্পবিপ্লবের সূচনা দেরিতে হওয়ার কারণ বিশ্লেষণে ঐতিহাসিকদের মধ্যে মতভেদ দেখা যায় । ঐতিহাসিক ডেভিড টমসন  অনুন্নত যােগাযােগ ব্যবস্থা , ঐতিহাসিক ডেভিড ল্যান্ডেস সামন্ততান্ত্রিক সমাজব্যবস্থা , অধ্যাপক গারসেক্রন  পশ্চাৎপদ অর্থনীতি , চেম্বারসমিংগে  প্রমুখ প্রতিকূল অবস্থাকে ফ্রান্স , জার্মানি , রাশিয়ার শিল্পবিপ্লবের বিলম্বের কারণ বলে দায়ী করেছেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!