শিক্ষা বিজ্ঞান

বুদ্ধি কাকে বলে

Contents

বুদ্ধি কাকে বলে

সাধারণ অভিজ্ঞতা থেকে দেখা যায় কিছু মানুষ খুব সহজভাবে জীবনের যে কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারে , যে কোনো নতুন পরিস্থিতিতে তারা নিজেকে খুব সহজে মানিয়ে নিতে পারে , অনেক বিষয় সহজে মনে রাখতে পারে , তাই এদের আমরা বলি বুদ্ধিমান । আবার কিছু মানুষ আছে ঠিক এর বিপরীত , তারা কোনো কাজ সহজে করতে পারে না , নতুন নতুন বিষয় বুঝতে পারে না বা নতুন পরিবেশকে সহজে মানিয়ে নিতে পারে না , জীবনের ছোটোখাটো ঘটনা বা সমস্যা এদের জীবনে বড়ো হয়ে দেখা দেয় , এদের সাধারণভাবে বলা হয় নির্বোধ । তবে সমাজে বুদ্ধিমান ও নির্বোধ এই দুই বুদ্ধি সম্পন্ন অবস্থার মাঝে সাধারণ বুদ্ধি বা মাঝারি বুদ্ধি সম্পন্ন মানুষের সংখ্যা পৃথিবীতে বেশি দেখা যায় । মানুষের জন্মগত এই গুণকে বলা হয় মানসিক ক্ষমতা বা বুদ্ধি । 

বুদ্ধির সংজ্ঞা 

বুদ্ধিকে নিয়ে যত মনোবিদ আলোচনা করেছেন প্রায় ততগুলি আমরা বুদ্ধির সংজ্ঞা দেখতে পাই । মনোবিদ পিন্টনার বুদ্ধির সংজ্ঞাগুলির গুরুত্বের দিক বিবেচনা করে চারটি শ্রেণিতে ভাগ করেছেন— 

1. জৈবিক সংজ্ঞা ( Biological Definition ) 

2. মানসিক ক্ষমতা সংক্রান্ত সংজ্ঞা ( Faculty Definition ) 

3. শিক্ষামূলক সংজ্ঞা ( Educational Definition ) 

4. পরীক্ষামূলক সংজ্ঞা ( Empirical Definition ) 

বুদ্ধির জৈবিক সংজ্ঞা

যে সকল বুদ্ধির সংজ্ঞাগুলির মধ্যে মানুষের অভিযোজনের ওপর বিশেষভাবে গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে সেগুলিকে জৈবিক সংজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে । যেমন –

( ১ ) মনোবিদ স্টার্ন ( Stern ) বলেছেন , “ Intelligence is the general mental adaptability to new problems and conditions of life ” . অর্থাৎ বুদ্ধি হল জীবনের নতুন নতুন সমস্যা বা পরিস্থিতির সঙ্গে সচেতন ভাবে সামঞ্জস্য বিধানের ক্ষমতা । 

( ২ ) Wells এর মতে , “ Inteligence means precisely the property of so recombining our behaviour pattern as to act better in novel situation . ” বুদ্ধি হল নতুন পরিস্থিতিতে উন্নততর কর্ম সম্পাদনের জন্য আমাদের আচরণ ধারার পুনর্বিন্যাস ঘটানোর বৈশিষ্ট্য । 

( ৩ ) এডওয়ার্ড ( Edward ) এর মতে , “ বুদ্ধি হল পরিবর্তনশীল এবং বহুমুখী প্রতিক্রিয়া করার ক্ষমতা , ” ( Capacity for variability and versatility of response is called intelligence ) . 

উপরিউক্ত জৈবিক সংজ্ঞাগুলি থেকে বলতে পারি , বুদ্ধি হল উন্নত ধরনের অভিযোজনমূলক প্রতিক্রিয়া করার গুরুত্বপূর্ণ মানসিক ক্ষমতা ।

বুদ্ধির মানসিক ক্ষমতা সংক্রান্ত সংজ্ঞা :

অনেক মনোবিদ মানুষের ক্ষমতা সংক্রান্ত সংজ্ঞাগুলি বুদ্ধিকে মানসিক ক্ষমতা বা গুণ হিসেবে ব্যাখ্যা করেছেন । যেমন – 

( ১ ) বিঁনে বলেছেন , “ বুদ্ধি হল বোধগম্যতার সম্পূর্ণতা , একাগ্রতা ও বিশ্লেষণমূলক চিন্তন ক্ষমতার সমবায় । ” 

( ২ ) মনোবিদ Terman বলেছেন , “ বুদ্ধি হল বিমূর্ত চিত্তন ক্ষমতার সঙ্গে সমানুপাতী । ” ( Intelligence is the ability to carry on abstract thinking . ) 

( ৩ ) মনোবিদ Woodrow’s বলেছেন , “ Intelligence is an acquiring capacity . অর্থাৎ , বুদ্ধি হল এমন ক্ষমতা যা অন্যান্য গৌণ ক্ষমতা অর্জনে সহায়তা করে । 

( 8 ) Cattell এর মতে , বুদ্ধি হল এমন একটি সর্বজনীন ক্ষমতা যা ব্যক্তির অন্যান্য গৌণ ক্ষমতা অর্জনে সহায়তা করে । ( Intelligence is capacity to acquire capacities . ) 

উপরিউক্ত মানসিক ক্ষমতা সংক্রান্ত সংজ্ঞাগুলি থেকে বলতে পারি , বুদ্ধি হল এমন একটি সর্বজনীন ক্ষমতা যার দ্বারা মানুষ একাগ্রতা ও বিশ্লেষণমূলক চিন্তন এবং বিমূর্ত চিন্তন কার্য করতে পারে । 

বুদ্ধির শিক্ষামূলক সংজ্ঞা : 

শিক্ষামূলক সংজ্ঞাগুলিতে মানুষের শিখন ক্ষমতার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে । যেমন – 

( ১ ) বাকিংহাম বলেছেন , বুদ্ধি হল শিখনের মানসিক ক্ষমতা । “ Intelligence is the ability to learn . ”

( ২ ) কলভিন বলেছেন , “ ব্যক্তির বুদ্ধি হল তার অভিযোজন সংক্রান্ত অতীত শিখন ক্ষমতার সমানুপাতী । ” 

( ৩ ) মনোবিদ Hollings Worth বলেছেন , বুদ্ধিমান ব্যক্তি তার চাহিদা অনুযায়ী শিখতে পারে । ” 

( 8 ) Dearborn বলেছেন , বুদ্ধি হল অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আরও উন্নত হওয়ার ক্ষমতা । ” Intelligence is the capacity to learn or profit by Experience . 

উপরিউক্ত সংজ্ঞাগুলি থেকে এক কথায় বলা যায় বুদ্ধি হল দ্রুত ও সহজে শিখনের ক্ষমতা । 

বুদ্ধির পরীক্ষামূলক সংজ্ঞা :

পরীক্ষামূলক সংজ্ঞা বুদ্ধি কার্যকারীতার ওপর গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে । যেমন – 

( ১ ) থর্নডাইক বলেছেন , “ বুদ্ধি হল বিভিন্ন বিষয়ের প্রতি আদর্শ প্রতিক্রিয়া করার ক্ষমতা । ” ( Intelligence is the power to good response from the paint of view of truth or fact . ) 

( ২ ) Ballard বলেছেন , বুদ্ধি হল মনের আপেক্ষিক ক্ষমতা যা থেকে একই ধরনের অনুরাগ , জ্ঞান পরিবেশের মধ্যে দেখা যায় । 

( ৩ ) পিঁরো ( Pieron ) বলেছেন , “ বুদ্ধি হল মূল্য নিরূপিত আচরণ ” । উপরিউক্ত পরীক্ষামূলক সংজ্ঞা থেকে বলা যায় , বুদ্ধি হল বিভিন্ন কার্যকারিতার মূল্য আরোপিত আচরণ । বিভিন্ন ধরনের বৌদ্ধিক কাজকে বিশ্লেষণ করে ভেক্রলার বলেছেন ; সর্বজনীন ক্ষমতার দ্বারা কোনো ব্যক্তি উদ্দেশ্যমুখী কর্ম সম্পাদন করতে পারে , বিচার বিবেচনামূলক চিন্তা করতে পারে এবং পরিবেশের সাথে সার্থক সামঞ্জস্য বিধান করতে পারে , তাই হল বুদ্ধি । 

error: Content is protected !!