দৃষ্টিহীন শিশুদের শিক্ষার উদ্দেশ্য 

দৃষ্টিহীন শিশুদের শিক্ষার উদ্দেশ্য 

অভিজ্ঞতা অর্জনে সাহায্য করা 

যেহেতু দৃষ্টিহীন ছেলেমেয়েরা দেখতে পায় না তাই শ্রবণ , স্পর্শ প্রভৃতি পদ্ধতি অবলম্বন ক’রে দৃষ্টিহীনদের বিভিন্ন বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জনে সাহায্য করা হয় । এগুলি দৃষ্টিহীনদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশে সাহায্য করে । 

আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তোলা 

দৃষ্টিহীন ছেলেমেয়েদের শিক্ষার গুরুত্বপূর্ণ উদ্দেশ্য হল — এদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তোলা , হীনম্মন্যতা দূর করা , পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে চলতে সাহায্য করা । 

যথাযোগ্য মনোভাব গড়ে তোলা 

দৃষ্টিহীনদের শিক্ষার উদ্দেশ্য হল তাদের সমাজ সচেতন করে তোলা । তারাও যে এই সমাজের সদস্য এবং সমাজের কাছে তাদেরও যে গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে এই বোধ জাগানো । 

বিভিন্ন ইন্দ্রিয়ের ব্যবহার 

চোখ ছাড়া অন্যান্য ইন্দ্রিয়কে দৃষ্টিহীনরা যাতে সাবলীল ভাবে ব্যবহার করতে পারে , সে বিষয়ে জ্ঞান বা তথ্য পরিবেশন করাও এই শিক্ষার একটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্দেশ্য । 

বিশেষ মানসিক ক্ষমতার প্রয়োগ 

দৃষ্টিহীন ছেলেমেয়েরা বিশেষ মানসিক ক্ষমতা বা প্রবণতা অনুযায়ী শিক্ষা লাভ করে ভবিষ্যৎ জীবনে যাতে রুজি রোজগার করতে পারে , সে বিষয়ে তাদের সহযোগিতা করা এই শিক্ষার অন্যতম উদ্দেশ্য ।

সংগতি বিধানে সহায়তা করা 

দৃষ্টিহীনরা তাদের দৈনন্দিন কাজগুলি যাতে যথাযথ ভাবে করতে পারে সেজন্য তাদের বিভিন্ন ধরনের কৌশল শেখানো এই শিক্ষার একটি উদ্দেশ্য । 

বৃত্তিমুখী প্রশিক্ষণ দান 

দৃষ্টিহীন ছেলেমেয়েদের শিক্ষার আর একটি উদ্দেশ্য হল তাদের বৃত্তিমুখী প্রশিক্ষণ দান করা । বৃত্তিমুখী প্রশিক্ষণ তাদের রুজি রোজগারে সাহায্য করে ।

error: Content is protected !!