রাজ্য বিধানসভার গঠন

রাজ্য বিধানসভার গঠন

রাজ্য আইন সভার জনপ্রতিনিধি কক্ষের নাম হল বিধানসভা । সার্বিক প্রাপ্তবয়স্কের ভোটাধিকারের ভিত্তিতে বিধানসভার সদস্যরা জনসাধারণের দ্বারা সরাসরি নির্বাচিত হন । সংবিধানের ১৭০ নং ধারায় বিধানসভা গঠনের বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে বর্ণনা করা হয়েছে । 

সদস্য সংখ্যা 

সংবিধান অনুযায়ী সর্বাধিক ৫০০ এবং সর্বনিম্ন ৬০ জন সদস্য নিয়ে বিধানসভা গঠিত হয় । তবে পরবর্তীকালে বিভিন্ন সংবিধান সংশোধনীর মাধ্যমে কয়েকটি রাজ্যের বিধানসভার সর্বনিম্ন সদস্য সংখ্যা নির্ধারিত হয়েছে । যেমন— সিকিম – ৩০ জন , মিজোরাম , অরুণাচল ও গোয়া – ৪০ জন , নাগাল্যান্ড – ৪৬ জন । 

বিধানসভার মোট আসন সংখ্যার মধ্যে তপশিলি জাতি এবং তপশিলি উপজাতিদের জন্য কিছু নির্দিষ্ট সংখ্যক আসন সংরিক্ষত । এ ছাড়া রাজ্যপাল ইঙ্গ-ভারতীয় সম্প্রদায় থেকে একজন সদস্য মনোনয়ন করতে পারেন । এই ব্যবস্থা ২০২০ সালের ২৫ শে জানুয়ারি পর্যন্ত বলবৎ করা হয়েছে । 

কার্যকাল ও অধিবেশন 

বিধানসভার সাধারণ কার্যকালের মেয়াদ পাঁচ বছর । রাজ্যপাল রাজ্য বিধানসভার অধিবেশন আহ্বান করেন । সাধারণত বছরে অন্তত দুবার বিধানসভার অধিবেশন ডাকতে হয় । রাজ্যপাল বিধানসভার অধিবেশন স্থগিত রাখতে পারেন বা প্রয়োজন মনে করলে বিধানসভা ভেঙে দিতেও পারেন । 

স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার 

সংবিধানের ১৭৮ নং ধারা অনুসারে রাজ্য বিধানসভার প্রথম অধিবেশনে সদস্যরা নিজেদের মধ্যে থেকে একজনকে স্পিকার এবং অন্য একজনকে ডেপুটি স্পিকার হিসেবে নির্বাচন করেন । স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারকে তাঁরা প্রয়োজনবোধে পদচ্যুতও করতে পারেন । স্পিকারের অনুপস্থিতিতে ডেপুটি স্পিকার সভার কাজকর্ম পরিচালনা করেন । 

error: Content is protected !!