হাইকোর্টের গঠন

হাইকোর্টের গঠন

সংবিধানের ২১৪ নং ধারায় বলা হয়েছে , ভারতের প্রত্যেক রাজ্যে একটি করে হাইকোর্ট বা মহাধর্মাধিকরণ থাকবে । তবে সংবিধানের সপ্তম সংশোধনী অনুযায়ী , পার্লামেন্ট আইন প্রণয়ন করে দুই বা ততোধিক রাজ্যের বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের জন্য মাত্র একটি হাইকোর্ট গঠন করতে পারে । 

যেমন — পশ্চিমবঙ্গ এবং আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের জন্য কলকাতা হাইকোর্ট , কেরালা ও লাক্ষাদ্বীপের জন্য কেরালা হাইকোর্ট , চেন্নাই ও পণ্ডিচেরির জন্য চেন্নাই হাইকোর্ট , উত্তর পূর্বাঞ্চলের সাতটি রাজ্যের জন্য গুয়াহাটি হাইকোর্ট প্রভৃতি । ভারতে বর্তমানে ২৮ টি রাজ্যের জন্য মোট ২১ টি হাইকোর্ট রয়েছে । 

বিচারপতিদের সংখ্যা ও নিয়োগ 

সংবিধানের ২১৬ নং ধারা অনুযায়ী প্রতিটি হাইকোর্ট একজন প্রধান বিচারপতিঅন্যান্য কয়েকজন বিচারপতিকে নিয়ে গঠিত হয়ে থাকে । অন্যান্য বিচারপতির সংখ্যা রাষ্ট্রপতি নির্ধারণ করেন । প্রধান বিচারপতির আসন শূন্য হলে বা তিনি অনুপস্থিত থাকলে বা অন্য কোনো কারণে প্রধান বিচারপতি নিজের কাজ করতে অক্ষম হলে রাষ্ট্রপতি সংশ্লিষ্ট হাইকোর্টের বিচারপতিদের মধ্যে থেকে যে কোনো একজনকে অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ করতে পারেন । তা ছাড়া হাইকোর্টের কাজের চাপ বৃদ্ধি পেলে রাষ্ট্রপতি অনধিক দু-বছরের জন্য কয়েকজন অতিরিক্ত বিচারপতি নিয়োগ করতে পারেন । 

সংবিধানের ২১৭ ( ১ ) নং ধারা অনুসারে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি নিয়োগের সময় রাষ্ট্রপতি সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি এবং সংশ্লিষ্ট রাজ্যের রাজ্যপালের সঙ্গে পরামর্শ করতে পারেন । অন্যান্য বিচারপতিদের নিয়োগের সময় রাজ্যপাল ছাড়াও সংশ্লিষ্ট হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির সঙ্গে পরামর্শ করার ক্ষমতা রাষ্ট্রপতিকে দেওয়া হয়েছে ।

বিচারপতিদের যোগ্যতা 

হাইকোর্টের বিচারপতি হওয়ার জন্য নিম্নলিখিত যোগ্যতার প্রয়োজন হয়— 

1. বিচারপতিকে অবশ্যই ভারতীয় নাগরিক হতে হয় , 

2. ভারতে যে কোনো বিচার বিভাগীয় পদে কমপক্ষে ১০ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন অথবা কমপক্ষে ১০ বছর কোনো হাইকোর্টে বা দুই বা ততোধিক এইধরনের আদালতে অ্যাডভোকেট হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হতে হয় । 

বিচারপতিদের কার্যকাল ও পদচ্যুতি 

হাইকোর্টের বিচারপতিরা বর্তমানে ৬২ বছর বয়স পর্যন্ত নিজ পদে আসীন থাকতে পারেন । তবে প্রমাণিত অসদাচরণ বা অক্ষমতার অভিযোগের ভিত্তিতে পার্লামেন্টের উভয় কক্ষের মোট সদস্যের অধিকাংশ এবং উপস্থিত ও ভোটদানকারী সদস্যদের দুই-তৃতীয়াংশের সমর্থনে রাষ্ট্রপতি অভিযুক্ত বিচারপতিকে অপসারিত করতে পারেন । রাজ্যের সঞ্চিত তহবিল থেকে হাইকোর্টের বিচারপতিদের বেতন ও ভাতা ইত্যাদি দেওয়া হয় ।

error: Content is protected !!