ভারতীয় গণতন্ত্রে রাজনৈতিক দলের ভূমিকা

ভারতীয় গণতন্ত্রে রাজনৈতিক দলের ভূমিকা

গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় দল ব্যবস্থা এক অপরিহার্য অঙ্গ । ভিন্ন ভিন্ন রাজনৈতিক ব্যবস্থায় দলীয় ব্যবস্থা ভিন্নতর হয় । দলীয় ব্যবস্থার মধ্যে দিয়েই দেশের আর্থ-সামাজিক তথা রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক চিত্রের প্রতিফলন ঘটে । 

ভারতের মূল সংবিধানে রাজনৈতিক দলীয় ব্যবস্থার কোনো উল্লেখ না থাকলেও ১৯৮৫ সালে ৫২ তম সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে ভারতের দলব্যবস্থা সর্বপ্রথম সাংবিধানিক স্বীকৃতি লাভ করে । সংসদের জনপ্রতিনিধিত্ব আইনেও ভারতের রাজনৈতিক দলব্যবস্থার কথা উল্লেখ করা হয় । ভারতীয় গণতন্ত্রে রাজনৈতিক দলগুলির নানান গুরুত্ব লক্ষ করা যায় । যে দিকগুলি হল— 

রাজনৈতিক কাঠামোর স্থায়িত্ব রক্ষা 

ভারতের রাজনৈতিক দলগুলি ভারতীয় সংসদীয় গণতন্ত্রের প্রাণকেন্দ্র । ভারতের সংসদীয় গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক কাঠামোর ঐক্য ও স্থায়িত্ব রক্ষা ক’রে রাজনৈতিক দলগুলি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । 

অধ্যাপক অ্যালান বল তাঁর Modern Politics and Government গ্রন্থে মন্তব্য করেছেন , রাজনৈতিক দলগুলির একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ হল দেশের রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার জটিলতাগুলি দূর করে তাকে সুসংহত করা ও প্রতিষ্ঠিত করা ( ‘ One of the most important functions of political parties is that of unifying simplifying and establishing the political process : ‘ ) । অধ্যাপক অ্যালান বলের এই বক্তব্য ভারতের রাজনৈতিক দলগুলির কাজকর্মে প্রতিফলিত হতে দেখা যায় ।

সরকার ও জনগণের মধ্যে সংযোগ সাধন 

অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও রাজনৈতিক দলগুলি সরকার ও জনগণের মধ্যে সংযোগ সাধনের কাজে তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । পার্লামেন্টে এবং রাজ্য আইনসভায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা জনগণের দৈনন্দিন সমস্যা প্রতিকারের জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে থাকে । 

আইনসভার বাইরে সভা-সমিতি , কনভেনশন , বিক্ষোভ মিছিল প্রভৃতি আয়োজন করে তারা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরের সমস্যাগুলির সমাধানের জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে । অনেক সময় বিভিন্ন গণমাধ্যম ও স্থানীয় সংগঠনের সাহায্যে বিভিন্ন ইস্যুতে প্রচার চালিয়ে তারা জনগণকে শিক্ষিত , সচেতন ও সক্রিয় করে তোলে । 

গণতান্ত্রিক পরিবেশ বজায় রাখা 

ভারতের সংসদীয় গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ব্যবস্থায় বিরোধী দল সরকারি দলের স্বৈরাচার ও দুর্নীতি রোধ করে সুস্থ গণতান্ত্রিক পরিবেশ বজায় রাখে । প্রসঙ্গত বলা যায় , ভারতীয় সংসদীয় ব্যবস্থায় চতুর্থ সাধারণ নির্বাচন ( ১৯৬৭ ) পর্যন্ত দীর্ঘকাল যাবৎ কোনো শক্তিশালী বিরোধী দল ছিল না । 

১৯৭৭ সালের পর এই পটভূমির সম্পূর্ণ বদল ঘটেছে । বর্তমানে শক্তিশালী বিরোধী দল থাকায় কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল যতটা সম্ভব সরকারি কাজকর্মকে ত্রুটি মুক্ত রাখার চেষ্টা করে থাকে । 

জাতীয় ঐক্য ও সংহতি রক্ষা 

ভারতীয় গণতন্ত্রে রাজনৈতিক দলগুলির গুরুত্ব জাতীয় সংহতি ও ঐক্য রক্ষার কাজে বিশেষভাবে পরিলক্ষিত হয় । বিচ্ছিন্নতাবাদ ও সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলায় রাজনৈতিক দলগুলিকে গঠনমূলক ভূমিকা পালন করতে দেখা যায় । 

জম্মু ও কাশ্মীরের মতো সন্ত্রাস কবলিত এলাকায় ২০০৯ সালের সাধারণ নির্বাচনে ও তার আগে রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনে জনগণকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে নির্ভয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগে উদ্বুদ্ধ করতে রাজনৈতিক দলগুলি অত্যন্ত ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেছিল । 

রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা ও স্থায়িত্বের প্রশ্নে রাজনৈতিক দলগুলি বৃহত্তর স্বার্থে জাতীয় ঐক্যের কথা তুলে ধরে নিজেদের মতাদর্শ ও কর্মসূচি প্রচার করে থাকে । জাতি , ধর্ম , বর্ণের বিভেদ ভুলে জাতীয় দলগুলি জনগণের কাছে যে ঐক্য ও সংহতির ডাক দেয় তার ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । 

রাজনৈতিক সামাজিকীকরণ 

ভারতে রাজনৈতিক সামাজিকীকরণের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক দলগুলির একটি বড়ো ভূমিকা রয়েছে । জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যুতে সভা সমিতি , সেমিনার , কনভেনশন আহ্বানের মাধ্যমে নিজ নিজ রাজনৈতিক মূল্যবোধ ও আদর্শ প্রচার করে জনগণের রাজনৈতিক সামাজিকীকরণে রাজনৈতিক দলগুলি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে । 

অনেকের মতে , ভারতের মতো আধুনিক জনকল্যাণকর রাষ্ট্রে রাজনৈতিক দলগুলি রাষ্ট্রের কল্যাণমূলক কাজকর্মকে রূপায়িত করতে সর্বতোভাবে সাহায্য করে থাকে । তা ছাড়া খরা , বন্যা , ভূমিকম্প , দুর্ভিক্ষ , মহামারীর মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে রাজনৈতিক দলগুলি এগিয়ে এসে বিপর্যয় মোকাবিলায় সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে এবং জনগণের সেবার কাজে রাষ্ট্রকে সাহায্য করে থাকে ।

error: Content is protected !!