ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্রের বৈশিষ্ট্য

ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্রের বৈশিষ্ট্য

তত্ত্বগত দিক থেকে পর্যালোচনা করলে দেখা যায় , যুক্তরাষ্ট্রীয় প্রশাসনের চারটি মৌলিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে । সেগুলি হল – 

[ 1 ] কেন্দ্র ও অঙ্গরাজ্যগুলিকে নিয়ে দু ধরনের সরকারের উপস্থিতি ; 

[ 2 ] লিখিত ও দুষ্পরিবর্তনীয় সংবিধানের প্রাধান্য ; 

[ 3 ] সংবিধান কর্তৃক কেন্দ্র ও রাজ্যগুলির মধ্যে ক্ষমতা বণ্টন ; 

[ 4 ] একটি নিরপেক্ষ যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালতের অবস্থান । যুক্তরাষ্ট্রের এই মৌলিক বৈশিষ্ট্যগুলি ভারতীয় সংবিধানেও লক্ষ করা যায় । 

দুই ধরনের সরকার 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র , ব্রাজিল , কানাডা , অস্ট্রেলিয়ার মতো ভারতেও বর্তমানে কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্যগুলির জন্য পৃথক পৃথক সরকারের উপস্থিতি রয়েছে । একটি কেন্দ্রীয় সরকার এবং ২৮ টি রাজ্য সরকার ও ৭ টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল নিয়ে ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্র গঠিত । 

সংবিধানের প্রাধান্য 

লিখিত ও দুষ্পরিবর্তনীয় সংবিধানের প্রাধান্য ভারতেও দেখা যায় । ভারতীয় সংবিধান বিশ্বের মধ্যে সর্ববৃহৎ লিখিত সংবিধান । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো অতিমাত্রায় দুষ্পরিবর্তনীয় না হলেও ভারতীয় সংবিধান আংশিকভাবে দুষ্পরিবর্তনীয় । কেন্দ্র ও রাজ্য দু-ধরনের সরকারকে সংবিধানের অধীনে থেকে শাসনব্যবস্থা পরিচালনা করতে হয় । 

কেন্দ্র ও রাজ্য ক্ষমতা বণ্টন 

ভারতেও সংবিধান কর্তৃক কেন্দ্র ও রাজ্যগুলির মধ্যে ক্ষমতা বণ্টিত হয়েছে । যুক্তরাষ্ট্রীয় ক্ষমতা বণ্টন নীতির ওপর ভিত্তি করে সংবিধানে কেন্দ্র তালিকা , রাজ্য তালিকা ও যুগ্ম তালিকা — এই তিনটি তালিকা লিপিবদ্ধ করা হয়েছে । 

যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালতের উপস্থিতি 

যুক্তরাষ্ট্রীয় শাসন ব্যবস্থার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হিসেবে ভারতেও একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালত প্রতিষ্ঠিত হয়েছে । যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালত হিসেবে সুপ্রিমকোর্ট এই ভূমিকা পালন করে থাকে । সংবিধানের অভিভাবক ও ব্যাখ্যাকর্তা হিসেবে সুপ্রিমকোর্ট দেশের সর্বোচ্চ আদালতের মর্যাদা পায় । 

উপরিউক্ত আলোচনা থেকে স্পষ্টই বোঝা যায় যে , কাঠামো বা গঠনগত বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্রীয় শাসনব্যবস্থার অপরিহার্য বৈশিষ্ট্যগুলি ভারতের সংবিধানে বিদ্যমান । দুর্গাদাস বসুর মতে , যুক্তরাষ্ট্রীয় শাসনব্যবস্থার সবকটি মৌলিক বৈশিষ্ট্যই ভারতে উপস্থিত । ড. আম্বেদকরও বলেছেন ভারতের সংবিধান যুক্তরাষ্ট্রীয় ধরনের ।

error: Content is protected !!