ভারত কি একটি সার্বভৌম সমাজতান্ত্রিক ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক সাধারণতন্ত্র

ভারত কি একটি সার্বভৌম সমাজতান্ত্রিক ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক সাধারণতন্ত্র 

মূল সংবিধানের ভারতকে একটি ‘ সার্বভৌম , গণতান্ত্রিক , সাধারণতন্ত্র বলে ঘোষণা করা হয়েছিল । ১৯৭৬ সালের ৪২ তম সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে ‘ সমাজতান্ত্রিক ‘ ও ‘ ধর্মনিরপেক্ষ ‘ — এই দুটি শব্দ সংযোজনের পর ভারত একটি সার্বভৌম , সমাজতান্ত্রিক , ধর্মনিরপেক্ষ , গণতান্ত্রিক সাধারণতন্ত্র ‘ বলে ঘোষিত । 

সার্বভৌম  

প্রস্তাবনায় ভারতকে সার্বভৌম বলা হয়েছে । ভারত অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক উভয় দিক থেকে সার্বভৌম । দেশের অভ্যন্তরে সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ভারত রাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রণাধীন । আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ভারত রাষ্ট্র বহিঃশক্তির নিয়ন্ত্রণ থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত । 

কোনো কোনো সমালোচক মনে করেন যে , ব্রিটিশ কমনওয়েলথের সদস্যপদ ভারতের সার্বভৌমিকতাকে ক্ষুণ্ণ করেছে । এই অভিযোগ সমর্থনযোগ্য নয় । কারণ ভারত ব্রিটিশরাজের প্রতি আনুগত্য প্রদর্শন করে না । 

সমাজতান্ত্রিক 

প্রস্তাবনা অনুসারে , ভারত রাষ্ট্র সমাজতান্ত্রিক । বিভিন্ন সমাজতান্ত্রিক আদর্শ কার্যকর করার জন্য সংবিধানে প্রয়োজনীয় সংস্থান রাখা হয়েছে । একথা সঠিক যে , পরিপূর্ণ সমাজতন্ত্র ভারতে প্রতিষ্ঠিত না হলেও মিশ্র । অর্থনীতির আদর্শ গ্রহণ করে গণতান্ত্রিক সমাজতন্ত্রের আদর্শকে রূপায়ণের চেষ্টা করা হয়েছে । | 

ধর্ম নিরপেক্ষ 

ভারত ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র । ধর্মনিরপেক্ষতার অর্থ ভারতে কোনো ধর্ম রাষ্ট্রীয় ধর্ম নয় । রাষ্ট্র কোনো ধর্মের প্রতি পক্ষপাতিত্ব বা বিদ্বেষভাব পোষণ করে না । জাতি ধর্ম বর্ণ স্ত্রী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলে ধর্মীয় ব্যাপারে স্বাধীনতা ভোগ করেন । 

গণতান্ত্রিক 

সংবিধান অনুসারে ভারত রাষ্ট্রের শাসনব্যবস্থা গণতান্ত্রিক । এখানে সার্বিক প্রাপ্তবয়স্কের ভোটাধিকারের ভিত্তিতে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাই শাসনকার্যে অংশগ্রহণ করেন । সমালোচকেরা অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বৈষম্য , শোষণ ও দারিদ্র্যের অবস্থান প্রভৃতি আইনের অস্তিত্ব গণতন্ত্রকে সংকুচিত করেছে বলে মনে করেন । তবে , নিঃসন্দেহে বলা যায় , রাজনৈতিক ক্ষেত্রে গণতন্ত্র বিদ্যমান । 

সাধারণতন্ত্র 

প্রস্তাবনায় ভারত সাধারণতন্ত্র হিসেবে বর্ণিত । ভারতের শাসন ব্যবস্থার শীর্ষে আছেন রাষ্ট্রপতি । তাঁর পদটি বংশানুক্রমিক নয় , নির্বাচনমূলক । 

কোনো কোনো সমালোচক এ প্রসঙ্গে ভারতের কমনওয়েলথের সদস্যপদের কথা উল্লেখ করে তার ‘ সাধারণতান্ত্রিক ‘ চরিত্র নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন । কিন্তু , এই সদস্যপদ বাধ্যতামূলক নয় , স্বেচ্ছামূলক এবং ভারতের শাসন কাঠামোয় ইংল্যান্ডের রাজা বা রানির কোনো স্থান নেই ।

উপসংহার 

তাই , আমার মতে , ভারত নিঃসন্দেহে একটি সার্বভৌম , সমাজতান্ত্রিক , ধর্মনিরপেক্ষ , গণতান্ত্রিক , সাধারণতন্ত্র ।

error: Content is protected !!