রাষ্ট্র বিজ্ঞান

গণপরিষদের গঠন ও উদ্দেশ্য 

গণপরিষদের গঠন ও উদ্দেশ্য 

১৯৪৬ সালের ক্যাবিনেট মিশন পরিকল্পনা অনুসারে চারটি মূলনীতির ভিত্তিতে ভারতীয় গণপরিষদ গঠনের ব্যবস্থা গৃহীত হয় । সেই নীতিগুলি হল— 

1. ব্রিটিশ শাসিত প্রদেশ ও দেশীয় রাজ্যগুলির জনসংখ্যার অনুপাতে গণপরিষদে প্রতিনিধিত্বের ব্যবস্থা করা । 

2. গণপরিষদের সমস্ত আসন ( i ) সাধারণ ( মুসলমান ও শিখ ছাড়া অন্য সব সম্প্রদায় ) , ( ii ) মুসলমান ও ( iii ) শিখ — এই তিন সম্প্রদায়ের মধ্যে আনুপাতিক হারে বণ্টন করা । 

3. প্রাদেশিক আইনসভাগুলিতে প্রত্যেক সম্প্রদায়ের সদস্যদের একক হস্তান্তরযোগ্য সমানুপাতিক ভোটাধিকারের ভিত্তিতে নিজ নিজ সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি নির্বাচনের ব্যবস্থা করা । © 

4. দেশীয় রাজ্যগুলির লোকসংখ্যার অনুপাত অনুযায়ী গণপরিষদে প্রতিনিধিত্বের ব্যবস্থা করা । 

ক্যাবিনেট মিশনের প্রস্তাব অনুযায়ী গণপরিষদের মোট সদস্য সংখ্যা ৩৮৯ স্থির করা হয় । ব্রিটিশ শাসিত প্রদেশগুলি থেকে ২৯২ জন সদস্য গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় । এর মধ্যে মুসলমানদের জন্য ৭৮ টি , শিখদের জন্য ৪ টি এবং সাধারণের অর্থাৎ মুসলমান ও শিখ ছাড়া অন্য সব সম্প্রদায়ের জন্য ২১০ টি আসন নির্দিষ্ট করা হয় । এ ছাড়া অনধিক ৯৩ জন সদস্য দেশীয় রাজ্যগুলি থেকে এবং ৪ জন সদস্য চিফ কমিশনার শাসিত প্রদেশগুলি থেকে নেওয়া হবে বলে স্থির করা হয় । 

ক্যাবিনেট মিশনের প্রস্তাব অনুযায়ী ১৯৪৬ সালের জুলাই মাসে গণপরিষদ গঠনের জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় । চিফ কমিশনার শাসিত চারটি আসন সমেত ব্রিটিশ ভারত থেকে মোট ২৯৬ জন প্রতিনিধির জন্য গণপরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় । দলগত বিচারে গণপরিষদ নির্বাচনে কংগ্রেস ৬৯ শতাংশ আসন লাভের মাধ্যমে নিরঙ্কুশ প্রাধান্য প্রতিষ্ঠা করে । উপরন্তু , ভারত বিভাগের সিদ্ধান্ত গৃহীত হওয়ার পর মুসলিম লিগ প্রতিনিধিরা ভারতীয় গণপরিষদ থেকে পদত্যাগ করলে কার্যত পরিষদে কংগ্রেসের প্রাধান্য বহুগুণ বৃদ্ধি পায় । 

গণপরিষদের উদ্দেশ্য 

গণপরিষদের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল এমন একটি খসড়া সংবিধান রচনা করা , যা সামাজিক বিপ্লবের চরম লক্ষ্য অর্জন করতে পারবে । পণ্ডিত নেহরুর অভিমত ছিল , গণপরিষদের প্রধান কাজ হবে একটি নতুন সংবিধানের মাধ্যমে স্বাধীন ভারতবর্ষের ক্ষুধার্ত ও বস্ত্রহীন মানুষের জন্য অন্নবস্ত্রের সংস্থান করা এবং যোগ্যতা অনুযায়ী প্রতিটি ভারতবাসীর আত্মবিকাশের জন্য সর্বাধিক সুযোগের ব্যবস্থা করা । 

সভাপতি ড. রাজেন্দ্র প্রসাদ ঘোষণা করেন , গণপরিষদের লক্ষ্য হবে দেশের সাধারণ নাগরিকদের দুঃখ দারিদ্র্যের পরিসমাপ্তি ঘটানো , বৈষম্য ও শোষণের অবসান এবং সুন্দর জীবনযাত্রার উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টি করা ।

error: Content is protected !!