জাতীয়তাবাদ ও আন্তর্জাতিকতাবাদের সম্পর্ক

জাতীয়তাবাদ ও আন্তর্জাতিকতাবাদের সম্পর্ক

বর্তমান শতাব্দীতে দুটি বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহ অভিজ্ঞতা , বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিদ্যার ব্যাপক উন্নতি , পরমাণু যুদ্ধের আশঙ্কা , বিভিন্ন রাষ্ট্রের মধ্যে পারস্পরিক নির্ভরশীলতা প্রভৃতি কারণে জাতীয়তাবাদ ও আন্তর্জাতিকতার সম্পর্ক আজকের দিনে একটি গুরুত্বপূর্ণ আলোচ্য বিষয় । কিন্তু রাষ্ট্রবিজ্ঞানীরা জাতীয়তাবাদ ও আন্তর্জাতিকতার মধ্যে প্রকৃত সম্পর্ক নির্ণয়ে একমত হতে পারেননি । 

সংজ্ঞাগত সম্পর্ক 

একটি জনসমাজের মধ্যে বংশ , ধর্ম , ভাষা , সাহিত্য প্রভৃতি নানা কারণে গভীর একাত্মবোধের প্রতিষ্ঠা ঘটলে জাতীয়তাবোধের জন্ম হয় । এই জাতীয়তাবোধের সঙ্গে দেশপ্রেম মিলিত হয়ে জাতীয়তাবাদের সৃষ্টি করে । 

অন্যদিকে , বিভিন্ন জাতির স্বাতন্ত্র্যবোধকে বিসর্জন না দিয়ে অর্থনৈতিক , রাজনৈতিক , সাংস্কৃতিক সহযোগিতার বন্ধনকে সুদৃঢ় করার মাধ্যমে স্বাধীনতা , সাম্য ও সৌভ্রাতৃত্বের ভিত্তিতে এক বিশ্বসমাজ গড়ে তোলাই আন্তর্জাতিকতার মুখ্য উদ্দেশ্য । 

আদর্শগত সম্পর্ক 

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহ পরিণামের পরে জাতীয়তাবাদের বিকৃত রূপকে চিহ্নিত করা হয় আন্তর্জাতিকতার বিরোধী হিসেবে । আন্তর্জাতিকতাবাদী কবি রবীন্দ্রনাথজাতীয়তাবাদকে মানব সভ্যতার শত্রু ‘ হিসেবে অভিহিত করেছেন । 

অন্যদিকে আন্তর্জাতিকতাবাদ মানব সভ্যতার বহুমুখী ধারার মধ্যে সমন্বয় সাধন করে বিশ্বভ্রাতৃত্বের আদর্শে বিশ্বমানব সমাজ গড়ে তুলতে চায় বলে তা বিশ্বশান্তির অগ্রদূত । 

ধারণাগত সম্পর্ক 

নিজ জাতি সম্বন্ধে শ্রেষ্ঠত্বের ধারণা এবং অন্য জাতির কৃষ্টি ও সভ্যতার প্রতি ঘৃণার মনোভাব বিকৃত জাতীয়তাবাদে দেখা যায় । এই কারণে বিকৃত জাতীয়তাবাদকে মানবতা বিরোধী আত্মকেন্দ্রিক ও আগ্রাসী মনোভাব বলে অভিহিত করা হয় । 

অন্যদিকে , আন্তর্জাতিকতাবাদে এই ধরনের সংকীর্ণ মনোভাবের জন্ম হওয়ার আশঙ্কা থাকে না । 

উপসংহার 

জাতীয়তাবাদ এবং আন্তর্জাতিকতাবাদের মধ্যে পার্থক্য থাকলেও এ কথা মনে রাখা দরকার যে , আদর্শ জাতীয়তাবাদের সঙ্গে আন্তর্জাতিকতার একটি সুসম্পর্ক রয়েছে । আদর্শ জাতীয়তাবাদ মানুষের মনে যে স্বদেশপ্রীতির সৃষ্টি করে তা ক্রমে বিশ্বপ্রীতিতে রূপান্তরিত হয় । আদর্শ জাতীয়তাবাদ নিজের জাতিকে ভালোবাসতে শেখায় , সঙ্গে সঙ্গে অপর জাতিকে ভালোবাসার জন্য প্রেরণা দেয় ।

আদর্শ জাতীয়তাবাদ ‘ নিজে বাঁচো এবং অপরকে বাঁচতে দাও ‘ ( Live and let live ) — এই বক্তব্য প্রচার করে বিশ্বসভ্যতার অগ্রগতির ধারাকে উন্মুক্ত করেছে । তাই আদর্শ জাতীয়তাবাদ হল আন্তর্জাতিকতাবাদে উত্তরণের অন্যতম সোপান । 

error: Content is protected !!