অপ্রচলিত শক্তির উৎস কাকে বলে 

অপ্রচলিত শক্তির উৎস কাকে বলে 

যে সব শক্তির উৎস বর্তমানে কম ব্যবহৃত হয় , সেগুলিকে অচিরাচরিত বা অপ্রচলিত শক্তির উৎস বলে । উদাহরণ— ( ১ ) সৌরশক্তি , ( ২ ) বায়ুশক্তি , ( ৩ ) জোয়ার ভাটার শক্তি , ( ৪ ) সামুদ্রিক ঢেউয়ের শক্তি , ( ৫ ) ভূতাপ শক্তি , ( ৬ ) জৈব গ্যাস প্রভৃতি অচিরাচরিত বা অপ্রচলিত শক্তির উৎস ।

অপ্রচলিত শক্তির ব্যবহারের সুবিধা 

( ১ ) অপ্রচলিত শক্তি ব্যবহারে পরিবেশ দূষিত হয় না । 

( ২ ) ক্ষুদ্রাকারে ব্যবহার করা যায় বলে প্রচুর মূলধনের প্রয়োজন হয় না । 

( ৩ ) প্রবহমান সম্পদ ( Flow resource ) বলে নিঃশেষিত হওয়ার আশংকা থাকে না । 

( ৪ ) দেশের অধিকাংশ জায়গায় কোনো না কোনো উৎস সহজলভ্য । 

অপ্রচলিত শক্তির ব্যবহারের অসুবিধা 

( ১ ) অপ্রচলিত বলে ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি সহজলভ্য নয় । 

( ২ ) সর্বত্র সমান মাত্রায় পাওয়া যায় না । যেমন — সমুদ্রোপকূল ছাড়া অন্যত্র জোয়ার ভাটার শক্তি দুর্বল । হিমমণ্ডলে সৌরশক্তি পর্যাপ্ত নয় । বায়ুশক্তি সর্বত্র ব্যবহারোপযোগী নয় । 

( ৩ ) অচিরাচরিত শক্তির উৎস এক দেশ থেকে অন্য দেশে পরিবহন করা যায় না ।

error: Content is protected !!