জলবিদ্যুৎ শক্তির সুবিধা ও অসুবিধা 

জলবিদ্যুৎ শক্তির সুবিধা ও অসুবিধা 

জলবিদ্যুৎ শক্তির সুবিধা 

অন্যান্য শক্তির উৎসের তুলনায় জলবিদ্যুৎ শক্তির অনেক সুবিধা আছে । যেমন— 

( ১ ) জলবিদ্যুৎ শক্তির ভাণ্ডার অফুরন্ত । একে বলে প্রবহমান শক্তি ( Flow energy ) । কিন্তু কয়লা , খনিজ তেল , প্রাকৃতিক গ্যাস , ইউরেনিয়াম ও থোরিয়াম থেকে প্রাপ্ত শক্তি ক্ষয়িষ্ণু বা সঞ্চিত শক্তি ( Exhaustible or Fund energy ) | 

( ২ ) জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের প্রাথমিক ব্যয় কিছুটা বেশি হলেও এর পৌনঃপুনিক বা আবর্তক ব্যয় ( Recurring expenditure ) অনেক কম । কিন্তু শক্তির অন্যান্য উৎসের ( কয়লা , খনিজ তেল ) ব্যবহারে প্রাথমিক ব্যয় কিছুটা কম হলেও আবর্তক ব্যয় খুব বেশি হয় । এই কারণে অন্যান্য শক্তির উৎসগুলির তুলনায় জলবিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যয় অনেক কম হয় । 

( ৩ ) জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের সময় ধোঁয়া , ছাই প্রভৃতি বর্জ্য পদার্থ নির্গত হয় না বলে এই বিদ্যুৎ ব্যবহারে পরিবেশ দূষিত হয় না অর্থাৎ এটি পরিচ্ছন্ন শক্তি । কিন্তু কয়লা বা খনিজ তেল থেকে শক্তি উৎপাদনের সময় ক্ষতিকর ছাই , ধোঁয়া প্রভৃতির সৃষ্টি হয় , যা পরিবেশ দূষিত করে । 

( ৪ ) কয়লা ও খনিজ তেলের তুলনায় জলবিদ্যুৎ অধিক তাপশক্তি উৎপাদনে সক্ষম । এই কারণে যেসব শিল্পে অধিক তাপশক্তির প্রয়োজন হয় ( যেমন — অ্যালুমিনিয়াম নিষ্কাশন শিল্প ) , সেগুলি জলবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের কাছেই গড়ে ওঠে । 

( ৫ ) কয়লা , খনিজ তেল প্রভৃতি পরিবহনের জন্য আলাদা যান , পাইপ লাইন বা নলপথের প্রয়োজন হয় । কিন্তু জলবিদ্যুৎ শক্তি সহজেই ট্রান্সমিশন লাইনের মাধ্যমে প্রেরণ করা যায় । বিশেষ অপচয় না করেই জলবিদ্যুৎ শক্তি ট্রান্সমিশন লাইনের মাধ্যমে উৎপাদন কেন্দ্র থেকে বিতরণ কেন্দ্রে পাঠানো যায় । কিন্তু কয়লা , খনিজ তেল প্রভৃতি পরিবহনে যথেষ্ট অপচয় হয় । 

( ৬ ) জলবিদ্যুৎ শক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে কাঁচামাল সংরক্ষণ করার প্রয়োজন হয় না । কিন্তু অন্যান্য শক্তির কাঁচামাল সংরক্ষণশীল । 

( ৭ ) জলবিদ্যুৎ উৎপাদনে শ্রমশক্তির প্রয়োজন কম হয় । কিন্তু কয়লা বা খনিজ তেলের ক্ষেত্রে উত্তোলন থেকে শুরু করে বিদ্যুৎ শক্তি উৎপাদন পর্যন্ত প্রচুর শ্রমশক্তির প্রয়োজন হয় । 

( ৮ ) অন্যান্য শক্তির তুলনায় জলবিদ্যুতের বিভাজ্যতা ( Divisibility ) অনেক বেশি । যান্ত্রিক পদ্ধতির সাহায্যে এক ওয়াটকে সহজেই হাজার ওয়াটে বিভাজন করা যায় । এজন্য অত্যাধুনিক যন্ত্রশিল্পে জলবিদ্যুৎ বেশি ব্যবহৃত হয় । 

জলবিদ্যুৎ শক্তির অসুবিধা 

অন্যান্য শক্তির উৎসের তুলনায় জলবিদ্যুৎ শক্তির কতকগুলি অসুবিধা আছে । যেমন— 

( ১ ) কেবল খরস্রোতা নদী বা জলপ্রপাতের কাছেই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করতে হয় । কিন্তু কয়লা ও খনিজ তেল অন্যত্র বহন করে নিয়ে যাওয়া যায় । 

( ২ ) জলবিদ্যুৎ সঞ্চয় করা যায় না । কিন্তু কয়লা বা খনিজ তেল সঞ্চয় করা যায় । 

( ৩ ) শিল্পের প্রয়োজনীয় শক্তি উৎপাদন ছাড়াও কয়লা বা খনিজ তেল শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয় । জলবিদ্যুৎ শক্তি কেবল শক্তি হিসেবেই ব্যবহৃত হয় । 

( ৪ ) জলবিদ্যুৎ থেকে কোনো উপজাত দ্রব্য পাওয়া যায় না , কিন্তু কয়লা বা খনিজ তেল থেকে নানা ধরনের উপজাত দ্রব্য উৎপাদন করা যায় । 

( ৫ ) জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনে প্রচুর মূলধন এবং উন্নত প্রযুক্তিবিদ্যার প্রয়োজন হয় । এই কারণে অনুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলিতে জলবিদ্যুৎ খুবই কম উৎপাদিত হয় । শক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে এইসব দেশে তাই কয়লা খনিজ তেলের ব্যবহার ও গুরুত্ব বেশি ।

error: Content is protected !!