ভূগোল

চা চাষের অনুকূল পরিবেশ 

চা চাষের অনুকূল পরিবেশ 

চা চাষের অনুকূল অবস্থাগুলিকে দুটি ভাগে ভাগ করা যায় , যথা— 

চা চাষের অনুকূল প্রাকৃতিক পরিবেশ 

প্রাকৃতিক অবস্থাগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য বিষয়গুলি হল— 

ভূপ্রকৃতি : চা চাষের জন্য ঢালু জমি দরকার যেখানে জল দাঁড়াতে পারে না । সেই কারণে পার্বত্য অঞ্চলের ঢালু জমিতে চা বাগিচাগুলি গড়ে ওঠে । তবে এখানে ভূমিক্ষয়ের সম্ভাবনাও বেশি থাকে বলে সমোন্নতি রেখা বরাবর ধাপ কেটে চাষ করা হয় ।

জলবায়ু : চা এর গন্ধ , বর্ণ , স্বাদ ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি স্থানীয় আবহাওয়া এবং আর্দ্রতার দ্বারা প্রভাবিত হয় । প্রকৃতপক্ষে চা চাষের জন্য অধিক বৃষ্টিপাতযুক্ত উষ্ণ ও আর্দ্র জলবায়ু প্রয়োজন । 150 সেমি থেকে 200 সেমি বৃষ্টিপাত এবং বাৎসরিক গড় উষ্ণতা 17° সে – 27° সে হলে চাষের চাষ ভালো হয় । গ্রীষ্মকালে গড় উষ্ণতা 27° সে হলে তা চা চাষের পক্ষে আদর্শ । তবে তুষারপাত চা গাছের পক্ষে ক্ষতিকর ।

মৃত্তিকা : চা চাষের জন্য উর্বর , অম্লধর্মী লোহা ও ম্যাঙ্গানিজ মিশ্রিত মৃত্তিকা উপযোগী । তবে সেই সঙ্গে মৃত্তিকায় পরিমাণ মতো নাইট্রোজেন , জিংক , পটাশিয়াম মেশাতে হয় । 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য , লোহা ও পটাশ সমৃদ্ধ মৃত্তিকা চায়ে সুগন্ধি আনে । 

চা চাষের অনুকূল অপ্রাকৃতিক পরিবেশ 

চা চাষের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অপ্রাকৃতিক অবস্থাগুলি হল— 

পর্যাপ্ত মূলধন : চা চাষের ক্ষেত্রে বাগিচা তৈরি করা , বাগানের পরিচর্যা , শ্রমিকের মজুরি , যন্ত্রপাতি , সার , চা প্রক্রিয়াকরণের জন্য কারখানা স্থাপন করা ইত্যাদির জন্য প্রচুর মূলধনের প্রয়োজন হয় । 

শ্রমিক : চা বাগান পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণ এবং নিপুণভাবে চা পাতা তোলার জন্য দক্ষ শ্রমিকের প্রয়োজন হয় । দার্জিলিং , কালিম্পং ও জলপাইগুড়ি জেলায় লেপচা , ভুটিয়া , গোর্খা মহিলারা এসব কাজে বিশেষ দক্ষ । 

পরিবহণ : চা বাগানগুলি যেহেতু পার্বত্যভূমিতে গড়ে ওঠে , সেই কারণে চা প্রক্রিয়াকরণের পর সেগুলি বিপণন কেন্দ্রে বা বিদেশে রপ্তানি করার জন্য উন্নত পরিবহণ ব্যবস্থার প্রয়োজন হয় । 

অন্যান্য : এই সমস্ত কারণগুলি ছাড়াও চা চাষের জন্য উন্নত প্রযুক্তির সহজলভ্যতা , চা এর চাহিদা , প্রশাসনিক সুযোগসুবিধা ইত্যাদি কারণগুলি চা চাষকে প্রভাবিত করে থাকে ।

error: Content is protected !!