মন্তেশ্বরী শিক্ষা পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য

মন্তেশ্বরী শিক্ষা পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য

ফ্রয়েবেলের মত তিনি ইন্দ্রিয় পরিমার্জনার ( Sense training ) উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন । এই দিক থেকে তাঁর তত্ত্ব মনোবিদ্যাসম্মত । তিনি জীবনের উপযোগী প্রশিক্ষণের কথা বলেছেন ; স্বয়ংশিক্ষার উপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন ; অবশেষে তিনি শিক্ষার্থীর অবাধ স্বাধীনতার উপর গুরুত্ব দিয়েছেন । এই তত্ত্বগুলিকে তাঁর শিক্ষার মধ্যে স্থান দেওয়ায় তাঁর পদ্ধতিতে শিক্ষাদানের ( Teaching ) চেয়ে শিখনের ( Learning ) উপর বেশী গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে । এই বৈশিষ্ট্য আধুনিক সকল শিক্ষণ পদ্ধতির মধ্যে বর্তমান । 

ব্যক্তিগত শিক্ষা 

মন্তেসরি শ্রেণী শিক্ষার পরিবর্তে বিশেষভাবে ব্যক্তিগত শিক্ষার ( Individual teaching ) উপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন । তিনি আধুনিক মনোবিদ্যার একটি পরীক্ষামূলক তত্ত্বকে শিক্ষাক্ষেত্রে প্রয়োগ করেছেন ( Theory of Individual difference ) । প্রত্যেক শিশুকে পৃথকভাবে পর্যবেক্ষণ করতে হবে , পৃথকভাবে শিক্ষাব্যবস্থা পরিচালনা করতে হবে । তাই তিনি ব্যক্তিগত শিক্ষাদানের ( Individualized instruction ) ব্যবস্থা করার উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেছেন ।  

শিশুকেন্দ্রিক শিক্ষা 

মন্তেসরি তাঁর শিক্ষা চিন্তায় শিশুর প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা দেখিয়েছেন । শিশুকেন্দ্রিক শিক্ষার আন্দোলনকে তিনি আরও স্থায়ীভাবে প্রতিষ্ঠা করেছেন । তিনি বলেছেন— ” The child’s soul which is pure and very sensitive , requires our most delicate care . ” তিনি শিশুদের সহানুভূতিশীল মনোভাব নিয়ে দেখতে নির্দেশ দিয়েছেন । তাঁর কাছে শিশুরা হল ভগবানের অংশ , শিক্ষালয় হল মন্দির । তিনি তাঁর নীতিকে প্রয়োগ করার জন্য যে ‘ শিশু নিকেতন ‘ স্থাপন করেন , যেখানে শিশুদের এই দৃষ্টিভঙ্গীতেই দেখা হত । 

মন্তেসরি এই মতবাদ প্রচারের জন্য বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন । ভারতবর্ষেও কিছুদিন তিনি ছিলেন এবং তাঁর পদ্ধতিতে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য তিনি ব্যবস্থা করেছিলেন ।  

ডিডাক‌টিক যন্ত্রের প্রয়োগ

ডিডাকটিক যন্ত্রের আবিষ্কার তাঁর শিক্ষা পদ্ধতিতে অভিনবত্ব এনেছে । এইসব স্বয়ংশিক্ষার উপকরণের উপযোগিতা তিনি সর্বসমক্ষে প্রমাণ করেছেন । শিক্ষক সম্পর্কে তার ধারণা শিক্ষাক্ষেত্রে নবযুগের সৃষ্টি করেছে । শিক্ষাক্ষেত্রে শিশুই হবে সক্রিয় সত্তা — শিক্ষক হবেন তার পরিচালক এবং সহায়ক । তিনি প্রয়োজন ছাড়া শিশুর স্বাভাবিক কাজে হস্তক্ষেপ করবেন না ।  

মন্তেসরি তাঁর শিক্ষিকার বৈশিষ্ট্য গতানুগতিক শিক্ষকের সঙ্গে তুলনা করতে গিয়ে মন্তব্য করেছেন— Instead of facility of speech , she has to acquire the power of silence , instead of teaching she has to observe ; instead of the proud dignity , one who claims to be unfallible she assumes the gesture of humanity . ”   

আরো পড়ুন : মন্তেসরি শিক্ষা পদ্ধতি

মন্তেসরির মতে শিক্ষার লক্ষ্য

কিন্ডারগার্টেন এবং মন্টেসরি পদ্ধতির মধ্যে পার্থক্য

মন্টেসরি এডুকেশন

মন্তেশ্বরী শিক্ষা পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য

error: Content is protected !!