ধাতু কাকে বলে

ধাতু কাকে বলে

যে মৌলের ঔজ্জ্বল্য আছে , যা সাধারণত কঠিন , ভারী , ঘাতসহ , তাপ ও বিদ্যুতের সুপরিবাহী , যাকে টেনে সুতোর আকার দেওয়া যায় , যা সাধারণত ধনাত্মক তড়িৎধর্মী এবং যাকে আঘাত করলে ধাতব শব্দ উৎপন্ন হয় তাকে ধাতু বলে । বেশির ভাগ মৌলই ধাতব প্রকৃতির এবং এগুলি আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে বহুলভাবে ব্যবহৃত হয় ।

ধাতুর বৈশিষ্ট্য

ধাতুর ভৌত ধর্ম : 

( i ) বেশির ভাগ ধাতুর উপরিতল উজ্জ্বল । যেমন— অ্যালুমিনিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম দেখতে উজ্জ্বল সাদা , সোনা চকচকে হলুদ ইত্যাদি । 

( ii ) ধাতু সাধারণত কঠিন । অবশ্য সব ধাতুর কাঠিন্য সমান নয় । যেমন — লোহা , তামা , অ্যালুমিনিয়াম বেশ কঠিন এদের ছুরি দিয়ে কাটা যায় না । কিন্তু সোডিয়াম , পটাসিয়াম এত নরম যে তা সহজেই ছুরি দিয়ে কাটা যায় । 

( iii ) সোনা , রুপা , অ্যালুমিনিয়াম প্রভৃতি ধাতুকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে খুব পাতলা পাত তৈরি করা যায় । ধাতুর এই ধর্মকে ঘাতসহ ধর্ম বলে । আবার সোনা , রুপা , তামা প্রভৃতি ধাতুকে টেনে খুব সরু তার তৈরি করা যায় । 

( iv ) বেশির ভাগ ধাতুই তাপ ও তড়িতের সুপরিবাহী কারণ এদের মধ্যে অজস্র মুক্ত ( free ) ইলেকট্রন থাকে । রুপা তাপ ও তড়িতের ভালো পরিবাহী । তামা , অ্যালুমিনিয়াম প্রভৃতিও বেশ উত্তম পরিবাহী । তাই রান্নার বাসনপত্র ও বৈদ্যুতিক তার সাধারণত তামা ও অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরি করা হয় ।

( v ) সোডিয়াম , লিথিয়াম ছাড়া সমস্ত ধাতু জল অপেক্ষা ভারী হয় । এদের গলনাঙ্ক ও স্ফুটনাঙ্ক অপেক্ষাকৃত বেশি হয় । এদের সংকর ধাতু গঠনের প্রবণতাও বেশি হয় ।

ধাতুর রাসায়নিক ধর্ম :

( i ) ধাতু ধনাত্মক তড়িৎধর্মী কারণ তারা সহজেই ইলেকট্রন ত্যাগ করে ধনাত্মক আয়ন গঠন করে । যেমন— 

Ne – e = Na+ ; Ca – 2e = Ca++

( ii ) প্রায় সমস্ত ধাতুই অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া করে ধাতব অক্সাইড গঠন করে । যেমন—

2Mg + O2 = 2MgO  

ধাতব অক্সাইডগুলি সাধারণত ক্ষারকীয় হয় । কিছু ধাতব অক্সাইড উভধর্মী অর্থাৎ এদের মধ্যে ক্ষারীয় ও আম্লিক উভয় ধর্মই দেখা যায় । 

( iii ) ধাতু জলের সঙ্গে বিক্রিয়া করে ধাতব হাইড্রক্সাইড বা অক্সাইড এবং হাইড্রোজেন গ্যাস উৎপন্ন করে । যেমন —

2Na + 2H2O = 2NaOH + H2↑ 

( iv ) হাইড্রোজেনের চেয়ে বেশি তড়িৎ ধনাত্মক ধাতু লঘু অজারক অ্যাসিড ( যেমন HCI H2SO4 ) এর সাথে বিক্রিয়া করে লবণ ও H2 গ্যাস উৎপন্ন করে । যেমন— 

Mg + 2HCl = MgCl2 + H₂↑ 

( v ) ধাতু ক্লোরিনের সাথে বিক্রিয়া করে তড়িৎযোজী ধাতব ক্লোরাইড গঠন করে । যেমন— 

2Na + Cl2 = 2NaCl  

( vi ) Na , K , Ca ছাড়া অন্যান্য ধাতু হাইড্রোজেনের সাথে বিক্রিয়া করে না । 

কিছু কিছু মৌল আছে যেগুলিকে ধাতু বলে গণ্য করা হয় কিন্তু এদের মধ্যে ধাতুর উপরিলিখিত সমস্ত ধর্ম বর্তমান নেই । যেমন— পারদ ধাতু হলেও কঠিন নয় , স্বাভাবিক অবস্থায় তরল । সোডিয়াম ধাতু হলেও ভারী নয় , জলের চেয়ে হালকা ।

error: Content is protected !!