অনুকৃতি কাকে বলে

অনুকৃতি কাকে বলে

মিমিক্রি বা অনুকৃতি ( Mimicry : Latin , mimicus or Greek , mimikos = simulate or imitate ) প্রাণীদের একপ্রকার অভিযােজন ( adaptation ) । এই পদ্ধতিতে একটি প্রাণী অপর একটি প্রাণীর আকৃতি এবং প্রকৃতি অবিকল নকল করতে পারে ।

1963 খ্রিস্টাব্দে ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক জুলজিক্যাল কংগ্রেস অনুকৃতির যে সংজ্ঞা অনুমােদন করেন তা এরূপ ㅡ অনুকৃতি হল একপ্রকার প্রাণীদের সঙ্গে অন্য আর একপ্রকার প্রাণীর একনিষ্ঠ সামঞ্জস্য ( resemblance ) , যার ফলে শিকারির কাছে কুখাদ্য ( unpalatable ) বলে পরিচিত একদল প্রাণীকে অনুকরণ করে একদল সুখাদ্য ( palatable ) প্রাণী প্রকৃতিতে বেঁচে থাকতে পারে । 

সাদারস ( Suthers ) এবং গ্যালান্ট ( Gallant ) 1973 খ্রিস্টাব্দে অনুকৃতির সংজ্ঞা হিসাবে বলেন যে , মিমিক্রি বা অনুকৃতি হল দুটি বা ততােধিক প্রাণীর মধ্যে ঘনিষ্ঠ সাদৃশ্য যার মাধ্যমে অন্তত একটি প্রাণী প্রজাতি উপকৃত হয়ে থাকে ।

অনুকৃতির প্রকারভেদ 

আবিষ্কারকের নাম অনুসারে অনুকৃতি নিম্নপ্রকারের হয়ে থাকে ।

বেটিসিয়ান অনুকৃতি :

বেটেস ( H. W. Bates ) 1862 খ্রিস্টাব্দে একপ্রকার অনুকৃতির কথা বর্ণনা করেন । এতে একপ্রকার নিরীহ প্রজাতির পতঙ্গ ( যা শিকারি পাখির কাছে সুখাদ্য বলে পরিচিত ) অন্য এক প্রজাতির পতঙ্গ ( যা শিকারি পাখির কাছে কুখাদ্য ) -দের অনুকরণ করেছিল । এই ঘটনায় সুখাদ্য বলে পরিচিত নিরীহ পতঙ্গটি ছিল অনুকরক ( Mimic ) এবং কুখাদ্য বলে পরিচিত বিপদজনক অন্য প্রজাতির পতঙ্গটি ছিল মডেল বেটেস বর্ণিত অনুকৃতিকে বেটেসিয়ান অনুকৃতি ( Batesian Mimicry ) বলা হয় । 

যে পদ্ধতিতে সুখাদ্যরূপে পরিচিত প্রজাপতি কুখাদ্য হিসাবে চিহ্নিত প্রজাপতির অনুকরণ করে নিজেদের রক্ষা করে তাকে বেটিসিয়ান অনুকৃতি বলা হয় । 

বেটিসিয়ান অনুকৃতির উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় , Basilarchus ( Limenitis ) archippus নামক একপ্রকার প্রজাপতি পাখিদের খুব প্রিয় খাদ্য । এটি Anosia ( Danaus ) plexippus নামক অন্য একপ্রকার প্রজাপতিকে অনুকরণ করে । কারণ Anosia পাখিদের খাদ্য নয় । এইভাবে Basilarchus প্রকৃতিতে বেঁচে আছে । Basilarchus কে মন্ত্রী ( viceroy ) এবং Anosia কে সম্রাট ( monarch ) বলে বর্ণনা করা হয় । 

মুলেরিয়ান অনুকৃতি :

মুলার ( Fritz Muller , 1879 ) বর্ণিত অনুকৃতিকে মুলেরিয়ান অনুকৃতি বলা হয় । এই অনুকৃতিতে কোনাে মডেলের দরকার হয় না । 

কুখাদ্যরূপে শনাক্তকৃত বিভিন্ন প্রজাতির প্রজাপতি একে অন্যের অনুকরণ করে বেঁচে থাকে কারণ খাদক পাখি যখন একটিকে কুখাদ্য বলে শনাক্ত করে অন্যরাও বেঁচে যায় । একে মুলেরিয়ান অনুকৃতি বলা হয় । 

মুলার একাধিক প্রজাতির প্রজাপতির মধ্যে সাদৃশ্য দেখতে পান , যাদের কোনােটিই সুস্বাদু ছিল না । এ ধরনের অনুকৃতির ফলে খাদক পাখি একবার কোনাে একটি অনুকরককে বিস্বাদু বলে চিহ্নিত করলে অন্যরাও খাদকের হাত থেকে আত্মরক্ষার সুযােগ পেয়ে যায় । উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় , মৌমাছি , বােলতা এবং ভিমরুল এদের সকলেরই হুল থাকে । এরা একই প্রকার দেখতে বলে শিকারি কোনাে একটিকে আক্রমণ করে হুল বিদ্ধ হলে অন্য সকলেই শিকারির হাত থেকে পরিত্রাণ পেয়ে যায় । 

বিবি এবং কেনেডি ( Beebe and Kenedy , 1957 ) একপ্রকার মথকে , বােলতার আকৃতি নকল করতে দেখেন । এইভাবে মথগুলি টিকটিকি , পাখি এবং পিপড়ের আক্রমণ থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারে ।

অনুকৃতির তাৎপর্য বা গুরুত্ব

( 1 ) অনুকৃতি একপ্রকার অভিযােজন । কোনাে প্রাণী ইচ্ছা করলেই অন্য একটি প্রাণীকে অনুকরণ করতে পারে না । এজন্য যে অনুকরণ করে তাকে মডেল সম্বন্ধে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করে তথ্য সংগ্রহ করতে হয় । 

( 2 ) প্রকৃতি থেকে কোনাে জীবগােষ্ঠী যাতে বিলুপ্ত না হয়ে যায় তার জন্য নানাবিধ অভিযােজন ঘটে থাকে । সেই সকল অভিযােজনের মধ্যে অনুকৃতি বিশেষ উল্লেখযােগ্য । 

( 3 ) সঠিক অনুকৃতির জন্য অবশ্যই জিনের পরিবর্তন ঘটাতে হয় । কারণ কোনাে অনুকরক যে বৈশিষ্ট্য অর্জন করে তা অবশ্যই তাদের বংশধরের মধ্যে সঞ্চারিত হওয়া দরকার নতুবা নতুন অপত্য অনুকরণ করতে ব্যর্থ হয়ে লুপ্ত হয়ে যাবে ।

error: Content is protected !!