জীবন বিজ্ঞান

নয়া ডারউইনবাদ কি

নয়া ডারউইনবাদ কি

1859 খ্রিস্টাব্দে চার্লস ডারউইনের “ প্রাকৃতিক নির্বাচন ” মতবাদটি প্রকাশিত হবার পরে জীববিজ্ঞানীদের কাছে 1900 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত তা ছিল অভ্রান্ত । 1900 খ্রিস্টাব্দে মেন্ডেলের বংশগতি তত্ত্বগুলি পুনঃ প্রকাশিত হবার পরে এবং 1901 খ্রিস্টাব্দে ডি ভ্রিসের ( Hugo de Vries ) পরিব্যক্তি ( mutation ) মতবাদ প্রকাশিত হবার পরে জীববিজ্ঞানীরা ডারউইনের প্রাকৃতিক নির্বাচন মতবাদ নিয়ে সরব হন ।

বিজ্ঞানী গােল্ডস্মিট ( R. B. Goldschmidt ) বিবর্তনকে ক্ষুদ্র বিবর্তন ( microevolution ) এবং বৃহৎ বিবর্তন ( macro evolution ) হিসাবে বিভাজিত করেন । তার মতে জিনের পরিব্যক্তির ফলে জীবদেহে প্রকরণ সৃষ্টি হয় । প্রকরণের ফলে ক্ষুদ্র বিবর্তন ঘটে এবং এতে নতুন প্রজাতি সৃষ্টি সম্ভব হয় না । নতুন প্রজাতির জন্য ক্রোমােজোমের পরিবর্তন দরকার । যা থেকে বৃহৎ বিবর্তন ঘটে এবং নতুন প্রজাতির উদ্ভব হয় । ডি ভ্রিসের ( Hugo de Vries ) মতে হঠাৎ ঘটে যাওয়া গুরুতর জিন পরিব্যক্তির ফলেই নতুন প্রজাতি সৃষ্টি হতে পারে । ডারউইন বর্ণিত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ধারাবাহিক পরিবর্তন দ্বারা নতুন প্রজাতির সৃষ্টি সম্ভব নয় । 

হ্যালডেন ( J. B. S. Haldane , 1924 ) বলেন ইনডাস্ট্রিয়াল মেলানিজমের ফলে ইংল্যান্ডের Biston bitularia নামক সাদা রংয়ের মথ কাল রংয়ের মথ Biston carbonaria এর মতাে বর্ণ ধারণ করতে পেরেছে । এটি একপ্রকার বিবর্তনের ফল । কেটেলওয়েল ( Kettlewell ) Biston bitularia মথের Biston Carbonaria -য় পরিবর্তিত হবার ঘটনাকে জিনের উপর পরিবেশের প্রভাব বলে বর্ণনা করেন । 

ফিশার ( Fisher , 1930 ) , হ্যালডেন ( Haldane , 1931 ) , রাইট ( Wright , 1932 ) পৃথকভাবে প্রমাণ করেন যে জনিতৃর অ্যালিলগুলি মেন্ডেলের বর্ণনা মতাে গ্যামেট তৈরির সময় পৃথক হয়ে যায় । ডারউইনের বর্ণনা মতাে জনিতৃর বৈশিষ্ট্য সন্তানের মধ্যে মিশে যায় । 

হার্ডি এবং ওয়েনবার্গ ( Hardy and Weinberg ) , সিউয়েল রাইট ( Sewall Wright ) , মেন্ডেলের পার্টিকুলেট সূত্র সমর্থন করে । পপুলেশনের মধ্যে জিনের ফ্রিকোয়েন্সি কেমন হবে তা নির্ণয় করে দেখান । 

ওয়াডিংটন ( Waddington , 1957 ) বলেন , পরিবেশই আসল নির্বাচক । পরিবেশের নির্বাচন ক্ষমতা প্রাকৃতিক নির্বাচনের উপর প্রভাব বিস্তার করে প্রথমে জেনােটাইপ এবং পরে ফেনােটাইপ তৈরি করে ।

বিভিন্ন বিজ্ঞানীদের মতামত বিশ্লেষণ করে সিম্পসন ( Simpson ) বলেন যে ডারউইনের মতবাদের প্রথম সংশােধন ভাইসম্যানের জার্মপ্লাজম মতবাদের মাধ্যমেই শুরু হয়েছিল । পরবর্তী বিজ্ঞানীরা ডারউইনের মতবাদের ত্রুটি এবং বিচ্যুতিগুলি মূল্যায়ন করেছেন । তাই তাঁদের মতামত ভাইসম্যান প্রতিষ্ঠিত নব্য ডারউইনবাদ বা নয়া ডারউইনবাদকে ( Neo – Darwinism ) স্বীকৃতি দিয়েছে । অনেকে নতুন মতামতগুলিকে সমন্বিত করে একে সংশ্লেষিত মতবাদ ( Synthetic theory ) বলেছেন ।

error: Content is protected !!