কার্বন চক্র কাকে বলে

কার্বন চক্র কাকে বলে

IMG ২০২১০৭০৫ ১৭২৫২৫1
কার্বন চক্র কাকে বলে

পরিবেশ এবং জীবজগতের মধ্যে যে চক্রাকার পদ্ধতিতে কার্বন মৌল কার্বন ডাই অক্সাইড যৌগ রূপে পরিবেশ থেকে জীব জগতে প্রবেশ করে এবং পুনরায় জীব জগৎ থেকে পরিবেশে ফিরে এসে বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইডের স্বাভাবিক মাত্রা বজায় রাখে, তাকে কার্বন চক্র বলে ।

কার্বন চক্রের বিবরণ 

পরিবেশ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইডের অপসারণ এবং পুনরায় পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযােজনের মাধ্যমে কার্বন চক্র সম্পূর্ণ হয় । কার্বন চক্রকে আলােচনার সুবিধার্থে তিনটি পর্যায়ে ভাগ করা যায় : ( I ) স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশের কার্বন চক্র , ( II ) জলজ পরিবেশের কার্বন চক্র এবং ( III ) স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশের এবং জলজ পরিবেশের কার্বন ডাই অক্সাইডের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক ।

স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশের কার্বন চক্র 

স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশ থেকে কার্বন ডাইঅক্সাইডের অপসারণ : 

এই পরিবেশ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইডের অপসারণ নিম্নলিখিত পদ্ধতিতে হয়— 

স্থলজ স্বভােজী জীবগােষ্ঠী , প্রধানত সবুজ উদ্ভিদ সালােকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শর্করা জাতীয় খাদ্য উৎপাদনের জন্য বায়ুমণ্ডলের কার্বন ডাই অক্সাইড শােষণ করে । উৎপন্ন শর্করাজাতীয় খাদ্যে কার্বন আবদ্ধ হয় । পরভােজী জীবগােষ্ঠী প্রত্যক্ষ বা পরােক্ষভাবে খাদ্যের মাধ্যমে স্বভােজী জীবগােষ্ঠী থেকে কার্বন নিজ শরীরে আবদ্ধ করে । 

স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযােজন : 

এই পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযােজন নিম্নলিখিত পদ্ধতিতে হয় —

i. সমস্ত স্থলজ জীব শ্বসন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে উৎপন্ন কার্বন ডাই অক্সাইড বায়বীয় পরিবেশে ত্যাগ করে । তবে স্বভােজী জীবগােষ্ঠী দিনের বেলায় শ্বসনে উৎপন্ন কার্বন ডাই অক্সাইডের কিছু অংশ সালােকসংশ্লেষে ব্যবহার করে । 

ii. বিভিন্ন প্রাকৃতিক নিয়মেও বায়বীয় পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযোজন হতে থাকে , যেমন- পচনকারী ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাকের মাধ্যমে মৃত জীবদেহ বিয়ােজিত হয়ে , উদ্ভিদজাত কাঠ ও বিভিন্ন জ্বালানির ( যথা — কয়লা , পেট্রোলিয়াম ) দহনের মাধ্যমে , আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের সময় উষ্ণ প্রস্রবণ থেকে , চুনাপাথর ও অ্যাসিডের বিক্রিয়ায় কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গত হয়ে পরিবেশে সংযােজিত হয়ে থাকে । 

জলজ পরিবেশের কার্বন চক্র 

জলজ পরিবেশ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড অপসারণ : 

এই পরিবেশ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইডের অপসারণের পদ্ধতিগুলি নিম্নরূপ—

( i ) সম্পূর্ণ নিমজ্জিত জলজ সবুজ উদ্ভিদগােষ্ঠী সালােকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ার জন্য জলে দ্রবীভূত কার্বন ডাইঅক্সাইড গ্রহণ করে । 

( ii ) জলে দ্রবীভূত কার্বন ডাইঅক্সাইডকে কিছু কিছু সামুদ্রিক মাছ শােষণ করে নিজের দেহে কার্বনেটে পরিণত করে দেহগঠনের কাজে লাগায় ।

জলজ পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযােজন : 

( i ) সম্পূর্ণ নিমজ্জিত অবস্থায় বসবাসকারী জলজ জীব শ্বসন প্রক্রিয়ার ফলে উৎপন্ন কার্বন ডাই অক্সাইড পরিবেশে ত্যাগ করে তবে জলে পূর্ণ নিমজ্জিত স্বভােজী জীবগােষ্ঠী শ্বসনের ফলে উৎপন্ন কার্বন ডাই অক্সাইডের কিছু অংশ সালােকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় ব্যবহার করে এবং বাকি অংশ পরিবেশে ত্যাগ করে । 

( ii ) জলজ মৃত কম্বােজ জাতীয় প্রাণীর দেহ কঙ্কালে উপস্থিত ক্যালশিয়াম কার্বনেট অ্যাসিড জাতীয় পদার্থের সংস্পর্শে এলে , এই কার্বনেট যৌগ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড মুক্ত হয় এবং পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযােজন ঘটে । 

স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশ এবং জলজ পরিবেশের মধ্যে কার্বন ডাই অক্সাইডের পারস্পরিক সম্পর্ক 

সমগ্র পরিবেশের কার্বন ডাই অক্সাইড চক্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশ এবং জলজ পরিবেশের মধ্যে কার্বন ডাই অক্সাইডের আদান প্রদান । উভয় পরিবেশের মধ্যে কার্বন ডাই অক্সাইডের আদানপ্রদান , ব্যাপন এবং বিভিন্ন রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে হয় । যেমন স্থলজ ও বায়বীয় পরিবেশের কার্বন ডাই অক্সাইড জলের সঙ্গে বিক্রিয়ায় কার্বনিক অ্যাসিড গঠন করে জলে দ্রবীভূত হয় , আবার জলে দ্রবীভূত কার্বন ডাই অক্সাইড এবং কার্বন ঘটিত বিভিন্ন যৌগ থেকে রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে কার্বন ডাই অক্সাইড মুক্ত হয়ে বায়বীয় পরিবেশে সংযােজিত হয় । 

উপরিউক্ত পদ্ধতিগুলির মাধ্যমে পরিবেশ থেকে কার্বন ডাই অক্সাইডের অপসারণ এবং পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের সংযােজন চক্রাকারে সম্পন্ন হয় এবং পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের ভারসাম্য রক্ষিত হয় ।

কার্বন চক্রের গুরুত্ব বা তাৎপর্য  

পরিবেশে কার্বন চক্রের গুরুত্ব বা তাৎপর্য গুলি হল—

( i ) জীবের দেহগঠনের অন্যতম উপাদান হল কার্বন , কার্বন চক্র পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ নির্দিষ্ট রাখার মাধ্যমে জীবের অস্তিত্ব রক্ষা করে । 

( ii ) জীবের খাদ্যের প্রধান উৎস হল স্বভােজী জীবগােষ্ঠী দ্বারা সালােকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে উৎপন্ন খাদ্য । এই খাদ্যের অন্যতম উপাদান হল কার্বন । এই কার্বন পরিবেশ থেকে সালােকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খাদ্যে আবদ্ধ হয় । এই খাদ্য জীবকোশে শ্বসনের মাধ্যমে শক্তি এবং কার্বন ডাই অক্সাইড উৎপন্ন করে এই শক্তির সাহায্যে জীব বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় কার্য সম্পন্ন করে এবং কার্বন ডাই অক্সাইড পরিবেশে নির্গত হয়ে পরিবেশের কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ নির্দিষ্ট রাখে । 

( iii ) এছাড়াও কার্বন চক্র পরােক্ষভাবে অক্সিজেন চক্রকে নিয়ন্ত্রণ করে জীবের শ্বসনের প্রয়ােজনীয় অক্সিজেনের পরিমাণ পরিবেশে নির্দিষ্ট রাখে ।

 

error: Content is protected !!