বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদ কাকে বলে

বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদ কাকে বলে

images 1
বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদ কাকে বলে

যেসব উদ্ভিদের কান্ড খুব নরম , সরস ও কাষ্ঠহীন , আকারে ছােটো এবং সাধারণত শাখাবিহীন অথবা স্বল্প সংখ্যক শাখাযুক্ত হয় তাদের বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদ বলে । এরা জলজ বা স্থলজ উদ্ভিদ হতে পারে ।

বিরুৎ জাতীয় উদ্ভিদের বৈশিষ্ট্য

বিরুৎ জাতীয় উদ্ভিদের বৈশিষ্ট্যগুলি হল 一
i. এই জাতীয় উদ্ভিদের কান্ড নরম , সরস ও কাষ্ঠহীন হয় ।  
ii. বিরুৎ উদ্ভিদের উচ্চতা কম হয় ।  
iii. মাটির গভীরে এদের শিকড় যায় না ।  

iv. এরা জলজ বা স্থলজ উদ্ভিদ হতে পারে 

বিরুৎ জাতীয় উদ্ভিদের প্রকারভেদ 

জীবনের স্থিতিকালের উপর নির্ভর করে বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদকে চারভাগে ভাগ করা হয় , যেমন— ( i ) ক্ষণজীবী ( Ephemerals ) , ( ii ) একবর্ষজীবী ( Annuals ) , ( iii ) দ্বিবর্ষজীবী ( Biennials ) এবং ( iv ) বহুবর্ষজীবী ( Perennials ) ।

ক্ষণজীবী উদ্ভিদ :

যেসব উদ্ভিদের জীবনচক্র মাত্র কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সম্পূর্ণ হয় তাদের ক্ষণজীবী উদ্ভিদ বলে । উদাহরণ – ব্যালানাইটিস ( balanites aegyptiaca ) ।

একবর্ষজীবী উদ্ভিদ :

যেসব উদ্ভিদের জীবনচক্র একটিমাত্র ঋতুতে শেষ হয় অর্থাৎ বীজ অঙ্কুরিত হবার পর একটি ঋতুর মধ্যে ফুল , ফল সৃষ্টি করে জীবনকাল শেষ হয় । তাদের একবর্ষজীবী উদ্ভিদ বলে । উদাহরণ- সরষে ( Brassica nigra ) , ধান ( Oryza sativa ) ,গম ( Triticum aestivum ) প্রভৃতি । 

দ্বিবর্ষজীবী উদ্ভিদ :

যেসব উদ্ভিদের জীবনচক্র শেষ হতে দুটি ঋতুর প্রয়ােজন অর্থাৎ প্রথম ঋতুতে বীজ অঙ্কুরিত হয়ে আস্তে আস্তে পরিণত হয় এবং দ্বিতীয় ঋতুতে ফুল , ফল ধারণ করে জীবন কাল শেষ হয় । এদের দ্বিবর্ষজীবী উদ্ভিদ বলে । উদাহরণ — মুলাে ( Raphanus sativus ) , গাজর ( Daucas carota ) প্রভৃতি । 

বহুবর্ষজীবী উদ্ভিদ :

যেসব বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদের জীবনচক্র শেষ হতে দুটির বেশি ঋতুর প্রয়ােজন তাদের বহুবর্ষজীবী উদ্ভিদ বলে । উদাহরণ — আদা ( Zingiber officinale ) , হলুদ ( Curcuria domestica ) , কলা ( Musa sapientum ) প্রভৃতি ।

error: Content is protected !!