ভারতের কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা

ভারতের কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা

ভারতের কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা

জলসেচ হল এমন এক ব্যবস্থা যার মাধ্যমে , বৃষ্টিপাত অনিশ্চিত বা অনিয়মিত হলেও কৃষিক্ষেত্রে সারাবছর নিয়মিতভাবে ও প্রয়োজন মতো জল সরবরাহ করে ফসল উৎপাদন করা সম্ভব  হয় । ভারতে মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বৃষ্টিপাত হলেও জলের অভাব ভারতীয় কৃষির একটি প্রধান সমস্যা । তাই ভারতীয় কৃষিতে জলসেচের গুরুত্ব সীমাহীন । কারণ —

অনিশ্চিত মৌসুমি বৃষ্টিপাত 

ভারতে সারাবছর বৃষ্টিপাত হয় না — শতকরা প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ভাগ বৃষ্টিপাত বর্ষাকালের ৪ মাসের মধ্যে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঘটে থাকে । কিন্তু দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর আগমন ও প্রত্যাগমন অনিশ্চিত এবং অনিয়মিত । কখনও অতিবৃষ্টি , আবার কখনও অনাবৃষ্টি — ফলে বিপুল পরিমাণে শস্যহানি ঘটে । একমাত্র জলসেচের মাধ্যমেই কৃষির এই অনিশ্চিত অবস্থার প্রতিকার সম্ভব । 

বৃষ্টিপাতের আঞ্চলিক অনিশ্চয়তা 

ভারতে মৌসুমি বৃষ্টিপাত সব জায়গায় সমান হয় না । উত্তর-পশ্চিম ভারতের অধিকাংশ জায়গায় বছরে ৭৫ সেন্টিমিটারেরও কম বৃষ্টিপাত হয় । বৃষ্টিপাতের এই আঞ্চলিক অনিশ্চয়তার দরুন রাজস্থান , পাঞ্জাব , হরিয়ানা , গুজরাতের উত্তর ও পশ্চিমাংশ , দাক্ষিণাত্য মালভূমির অভ্যন্তরভাগ প্রভৃতি এলাকায় কৃষিকাজের জন্য জলসেচের বিশেষ প্রয়ােজন । 

শীতকালে বৃষ্টিপাত হয় না 

উত্তর-পশ্চিম ভারতের কিছু অংশ এবং পূর্ব উপকূলের দক্ষিণাংশ — এই দুটি অঞ্চল ছাড়া ভারতের অন্যত্র শীতকালে বিশেষ বৃষ্টিপাত হয় না । সুতরাং , শীতকালে ভারতে রবি শস্য যেমন — গম , ডাল , তৈলবীজ প্রভৃতি চাষের জন্য জলসেচের ব্যবস্থা করা দরকার । 

মাটির জলধারণ ক্ষমতার অভাব 

দাক্ষিণাত্য মালভূমির লাল মাটি এবং ল্যাটেরাইট মাটির জল ধরে রাখার ক্ষমতা কম । সুতরাং , জলসেচ ভিন্ন ওইসব মাটিতে চাষ আবাদের উন্নতি সম্ভব নয় । 

উচ্চফলনশীল শস্যের চাষ 

উচ্চফলনশীল শস্যের চাষ করলে কৃষি উৎপাদন বাড়ে । কিন্তু সাধারণ শস্যের তুলনায় যে কোনাে উচ্চফলনশীল শস্য চাষে নিয়মিত বেশি জল প্রয়ােজন । একমাত্র জলসেচের মাধ্যমেই কৃষিক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রিত ও পর্যাপ্ত জল সরবরাহ করা যায় । 

বহুফসলি জমির পরিমাণ বাড়ানাে 

কৃষি উৎপাদন বাড়ানাের আর একটি উপায় জমিতে প্রতিবছর তিন-চারবার চাষ করা । একমাত্র জল সেচের ব্যবস্থা থাকলে জমিতে সারাবছর চাষ করা যায় ।

Leave a Comment

error: Content is protected !!