ভারত পরিচিতি

ভারত পরিচিতি

অবস্থান :  8°4` উত্তর অক্ষাংশ থেকে 37°6` উত্তর অক্ষাংশ এবং 68°7` পূর্ব অক্ষাংশ থেকে 97°25` পূর্ব  অক্ষাংশ পর্যন্ত বিস্তৃত। কর্কটক্রান্তি রেখা ভারতবর্ষকে প্রায় উত্তর দক্ষিণে দুই ভাগে ভাগ করেছে।

images 5
India

আয়তন :  32,87,590 বর্গ কিমি.। আয়তনে পৃথিবীর সপ্তম বৃহত্তম দেশ হল ভারতবর্ষ। উত্তর থেকে দক্ষিনে বিস্তৃত 3,214 কিমি. এবং পূর্ব-পশ্চিমে বিস্তৃত 2,933 কিমি.। পৃথিবীর মোট আয়তনের 2.3 শতাংশ (সর্বাধিক রাশিয়া 13 শতাংশ) এবং মোট জনসংখ্যার 17.5 শতাংশ ভারতবর্ষ অধিকার করে আছে। ভারতের উপকূলের দৈর্ঘ্য 7,516 কিমি.। দীর্ঘতম সমুদ্র উপকূল গুজরাটে এবং দ্বিতীয় দীর্ঘতম অন্ধ্রপ্রদেশে। মোট আয়তনের 43.3 শতাংশ সমভূমি, 27.7 শতাংশ মালভূমি, 18.6 শতাংশ উচ্চভূমি এবং 10.7 শতাংশে পর্বত অবস্থিত। ভারতে বঙ্গোপসাগরে আন্দামান ও নিকোবর দুটি  দ্বীপ এবং আরব সাগরে লাক্ষা, মিনিকয় ও আমন দ্বীপ অবস্থিত। ভারতের উত্তরে হিমালয় পর্বত পশ্চিমে সিন্ধু নদী থেকে পূর্বে ব্রহ্মপুত্র নদী পর্যন্ত 5,000 কিমি. বিস্তৃত এবং চওড়ায় 500 কিমি (কাশ্মীরে) থেকে 200 কিমি (অরুণাচলপ্রদেশে) পর্যন্ত বিস্তৃত। ভারতে বনভূমির পরিমাণ 21 শতাংশ।সর্বাধিক বনভূমি মধ্যপ্রদেশে  এবং দ্বিতীয় সর্বাধিক অরুণাচলপ্রদেশ। জনসংখ্যার প্রায় 62 শতাংশ মানুষ গ্রামে এবং 38 শতাংশ মানুষ শহরে বাস করে। 2012 সালে তেন্ডুলকরের পদ্ধতি অনুযায়ী গ্রাম অঞ্চলে যারা 816 টাকা প্রতি মাসে খরচ করে এবং শহরাঞ্চলে যারা 1000 টাকা প্রতি মাসে খরচ করে তারা দারিদ্র্যসীমার উপরে। বর্তমানে মোট জনসংখ্যার 21.9 শতাংশ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করে। 2012 সালে ভারতে দারিদ্রসীমার নীচে ছিল 26 কোটি 90 লক্ষ মানুষ। 2004-2005 থেকে  2011-2012 সালের মধ্যে 2.18 শতাংশ মানুষ দারিদ্র্যসীমার উপরে উঠে এসেছে। বিশ্বের 27 শতাংশ দরিদ্র মানুষের বাস ভারতে। ভারতের 68 শতাংশ জল ব্যবহার যোগ্য। ভারতে কৃষি ক্ষেত্রে 52 শতাংশ, চাকরিতে 34 শতাংশ, কারখানায় 14 শতাংশ মানুষ জীবিকা নির্বাহ করে। কর্মহীন মানুষের সংখ্যা 9.4 শতাংশ।

ভারতের সর্বশেষ তম বিন্দু/স্থান (মূল ভূখন্ড হতে)

ভারতের উত্তর দিকের সর্বশেষতম বিন্দু/স্থান – কারাকোরাম পাশের নিকট অবস্থিত সিয়াচেন হিমবাহ (জম্মু ও কাশ্মীর)।

ভারতের দক্ষিণ দিকে সর্বশেষ তম বিন্দু/স্থান – মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে যুক্ত তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারীর নিকট অবস্থিত কেপ কমোরিন নামক স্থান। (ভারতের সর্ব দক্ষিণের অংশ ইন্দিরা পয়েন্ট বা পিগম‍্যালিয়ন পয়েন্ট কিন্তু মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে এটি যুক্ত নয়। এটি আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের দক্ষিণে অবস্থিত)।

ভারতের পূর্ব দিকের সর্বশেষতম বিন্দু/স্থান – অরুণাচল প্রদেশের লোহিত নদীর তীরে অবস্থিত কিবিথু  নামক স্থান।

ভারতের পশ্চিম দিকের সর্বশেষতম বিন্দু/স্থান – গুজরাটের ঘুয়রমোতা নামক স্থান।

** ভারতের পূর্বতম ও পশ্চিমতম বিন্দু দুটির মধ্যে সময় পার্থক্য – 2 ঘণ্টা।**

একনজরে ভারতের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

  • ভারতবর্ষে মোট 28 টি রাজ্য 9 টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল 732 টি জেলা আছে (2019 সালের হিসেবে)। 
  • ভারতের বৃহত্তম রাজ্য রাজস্থান (3,42,239 বর্গ কিমি) ও ক্ষুদ্রতম রাজ্য গোয়া (3,702 বর্গ কিমি)।
  • আয়তনে বৃহত্তম জেলা গুজরাটের কচ্ছ (45,652 বর্গ কিমি) ও ক্ষুদ্রতম জেলা পুড়ুচেরীর মাহে (8.7 বর্গ কিমি)।
  • জনসংখ্যা অনুযায়ী বৃহত্তম জেলা মহারাষ্ট্রের থানে (1,10,60,148 জন) ও ক্ষুদ্রতম জেলা অরুণাচল প্রদেশের ডিবং উপত্যকা (8,004 জন)।
  • ভারতের বৃহত্তম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং ক্ষুদ্রতম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল লাক্ষাদ্বীপ।
  • উত্তরপ্রদেশের সীমানা সর্বাধিক আটটি রাজ্যের সাথে সংযুক্ত। রাজ্যগুলো হল – উত্তরাখন্ড, হরিয়ানা, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্রিশগড়, হিমাচলপ্রদেশ, ঝাড়খন্ড, বিহার (উত্তরপ্রদেশের পর সর্বাধিক সাতটি রাজ্যের সীমানার সঙ্গে যুক্ত অসম)।
  • 9 টি রাজ্য সমুদ্র উপকূলে অবস্থিত। রাজ্যগুলো হল – গুজরাট, মহারাষ্ট্র, গোয়া, কর্ণাটক, কেরালা, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশে, ওড়িশা এবং পশ্চিমবঙ্গ।
  • দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হলো – পুড়ুচেরী ও দমন-দিউ সমুদ্র উপকূলে অবস্থিত।
  • বঙ্গোপসাগরে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং আরবসাগরে লাক্ষাদ্বীপ এই দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল দ্বীপের সমন্বয়ে গঠিত।
  • ভারতে মোট 247 টি দ্বীপ আছে। 204 টি আছে বঙ্গোপসাগরে ও 43 টি আছে আরবসাগরে।
  • কর্কটক্রান্তি রেখা ভারতের 8 টি রাজ্যের মধ্যে দিয়ে গেছে। রাজ্যগুলি হলো – মধ্যপ্রদেশ, ছত্রিশগড়, গুজরাট, রাজস্থান, মিজোরাম, পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা ও ঝারখন্ড।
  • ছোটনাগপুর মালভূমি প্রাচীন আগ্নেয় শিলা ও রূপান্তরিত শিলা দ্বারা গঠিত।
  • ভারতের সমুদ্র উপকূলের দৈর্ঘ্য 7,517 কিমি।
  • তামিলনাড়ুর উপকূল (ভারতের পূর্ব উপকূলের দক্ষিণাংশ) করমন্ডল উপকূল নামে পরিচিত।
  • ভারতের পশ্চিম উপকূলের উত্তরাংশ কোঙ্কন উপকূল (মহারাষ্ট্র, গোয়া ও কর্ণাটকে 720 কিমি বিস্তৃত) এবং দক্ষিণাংশ মালাবার উপকূল (গোয়ার দক্ষিণ থেকে কন্যাকুমারী পর্যন্ত বিস্তৃত) নামে পরিচিত।
  • পশ্চিম লাদাখের দ্রাস ভারতের সর্বাধিক শীতপ্রধান স্থান। এখানকার তাপমাত্রা  -44 ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হয়।
  • ভারতবর্ষে মোট ছয়টি মেট্রোপলিটন শহর আছে – দিল্লি, মুম্বাই, চেন্নাই, কলকাতা, বেঙ্গালুরু ও হায়দ্রাবাদ।
  • ভারতবর্ষে কথ্য ভাষার শতকরা হিসেব হলো – হিন্দি 41%, বাংলা 8.1%, তেলেগু 7.2%, মারাঠি 7%, তামিল 5.9%, উর্দু 5%, গুজরাটি 4.5%, কানাড়া 3.7%, মালয়ালাম 3.2%, ওড়িয়া 3.2%, পাঞ্জাবি 2.8%, অসমীয়া 1.3%, মৈথিলী 1.2%, অন্যান্য 5.9%।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!